স্বামীর কাছে স্ত্রীর আবদার, হাট থেকে এনে দিতে হবে নতুন ব্লাউজ। স্বামী ব্লাউজের বায়না না মেটানোয়, বিষ খেয়ে আত্নহত্যার চেষ্টা করে স্ত্রী। আর স্ত্রীর আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে আধ খাওয়া বিষের বাকিটা খেয়ে মৃত্যু হলো স্বামীর।

এমন বেনজির আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর দিনাজপুরের কালিয়াগঞ্জের বকদুয়ার গ্রামে।

ঘটনার সূত্রপাত সোমবার। উদয় রায় নামে ওই ব্যক্তি ধনকৈল হাটে গিয়েছিলেন ধান বিক্রি করতে। হাট থেকে ব্লাউজ কিনে আনার আবদার করেন তার স্ত্রী লতিকা। কিন্তু ভুলবশত ব্লাউজের বদলে মুরগির মাংস কিনে বাড়ি ফেরেন তিনি। স্বামীক কাণ্ড দেখে রীতিমত রেগে আগুন লতিকা।

ব্লাউজ নিয়ে তাদের মধ্যে শুরু হয় ঝগড়া। এক পর্যায়ে তা এতটাই চরমে ওঠে যে উদয়ের আনা মাংস রান্না করতে অস্বীকার করে লতিকা। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে সেই মাংস রান্না করে নেন উদয়ের মা।

অনেক আগেই রান্না সেই মাংস খেয়ে নিয়েছিল মা-ছেলের। কিন্তু এটি লতিকা মেনে নিতে পারেনি। সঙ্গে সঙ্গে দোকান থেকে বিষ এনে তা খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সে। বছর বাইশের লতিকাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে কালিয়াগঞ্জ স্টেট জেনারেল হাসাপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন তিনি।

স্থানীয় বাসিন্দাদের কথায়, স্ত্রীর খাওয়া বাকি বিষ নিয়ে বাইরে বেরিয়ে যান উদয়। অনেক রাত পর্যন্ত ঘরে না ফেরায় খোঁজাখুঁজি শুরু হয়। প্রতিবেশিরা প্রথমে সন্দেহ করেন, ট্রেন ধরে হয়ত দিল্লি চলে গিয়েছেন উদয়। কিন্তু পরের দিন সকালে পাশের আমবাগানে তার মৃত দেহ উদ্ধার হয়।

বিষয়টি জানাজানি হতেই এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়ায়। খবর দেওয়া হয় কালিয়াগঞ্জ থানার পুলিশকে। পুলিশ এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here