রাজধানীর খিলগাঁওয়ে মেরাদিয়া এলাকায় তৈয়্যবিয়া মাইজভান্ডারির খানকা শরিফ থেকে ১১ নেশাখোরকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। উদ্ধার করা হয়েছে গাঁজা-ফেন্সিডিলসহ নানা ধরনের মাদকদ্রব্য। এসব নেশাখোর উপাসনার নাম করে দলবদ্ধ হয়ে বিভিন্ন ধরনের নেশা করতো বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাতে র‍্যাবের তিনটি দল এই অভিযানে অংশ নেয়। অভিযানের নেতৃত্ব দেন র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম। তিনি জানান, সরকারি ছয় কাঠা খাসজমি দখল করে এসব ব্যক্তি মাইজভান্ডারির খানকা শরিফ গড়ে তুলেছিল। জমিগুলো উদ্ধার করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, খিলগাঁওয়ের দক্ষিণ বনশ্রী জি-ব্লকের ছয় নম্বর রোডের মাঝামাঝি হিন্দুপাড়ায় মাইজভান্ডারটি অবস্থিত। এটি তরিকত ফেডারেশনের খিলগাঁও থানা সভাপতি সেলিম ভুঁইয়া দরবার শরিফ পরিচালনা করেন। দলের কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি ও সৈয়দ রেজাউল হক চাঁদপুরী। দরবারটি নজিবুল বশরের ছেলে তৈয়বুল বশরের নামে প্রতিষ্ঠা করা হয়। দরবার শরিফের নাম দিয়ে প্রতিনিয়তই মাদক সেবন করার পাশাপাশি মাদক কেনাবেচাও হয়।

র‌্যাব-৩ এর মেজর মারুফ আব্দুল্লাহ বলেন, মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এই দরবারটিতে অভিযান চালানো হয়। দরবারের বিভিন্ন জায়গায় সেবন ও বিক্রির জন্য মজুদ করে রাখা গাঁজা ও ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। দীর্ঘদিন থেকে এখানে গাঁজা ও ফেন্সিডিলের আসর বসতো। হাতেনাতে আটকের পর তাদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাদের ছয় মাস থেকে এক বছরের দণ্ড দেওয়া হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, অবৈধভাবে দখল করা সরকারি জমিটি উদ্ধার করা হয়েছে। আগামীকাল সকালে ঢাকা জেলা প্রশাসন জমিটি বুঝে নেবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here