‘আমাকে কোনো অ্যারেস্ট ওয়ারেন্ট ছাড়াই সিনেমাটিক স্টাইলে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এ সংস্কৃতি কারও জন্যই সন্তোষজনক নয়। এটি আইনের মধ্যেও পড়ে না।’ বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার।

ইমরান বলেন, ‘সমাবেশের অনুমতি নেয়া, না নেয়া র‌্যাবের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট নয়। আইন-শৃঙ্খলা রায় পুলিশ আছে, তারা এগুলো দেখবে। এছাড়া আমাদের অনুমতি নেয়া ছিল। ৩ জুন যখন আমাদের সমাবেশ করতে দেয়া হয়নি তখন সমাবেশের বিষয়টি ডিএমপি কমিশনার ও শাহবাগ থানা পুলিকে জানিয়ে আমরা চিঠি দেই। মৌখিকভাবেও জানাই। শাহবাগে সমাবেশ করতে তো অনুমতি লাগে না। আগেও আমরা সমাবেশ করেছি।’

ওই ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে ইমরান বলেন, ‘গাড়িতে তোলার পর আমার মুখ কালো কাপড় দিয়ে বেঁধে দেয়া হয়, হাতে হাতকড়া পরানো হয়। মুখে কাপড় থাকায় কোথায় নেয়া হয়েছে তা বুঝতে পারিনি। নিয়ে যাওয়ার পর র‌্যাবের কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা আমার কাছে এসে বলেন, আপনার সঙ্গে আলোচনার জন্য এখানে আনা হয়েছে। আপনাদের আন্দোলনের বিষয়ে জানতে চাই।’

তিনি বলেন, ‘তাদের সঙ্গে আমার আলোচনা আপত্তিকর ছিল না। তারা সৌহার্দ্যের সঙ্গে আমার সঙ্গে কথা বলেছে। আমার ভাই ও বোনের নম্বর নিয়ে তারা (র‌্যাব কর্মকর্তারা) তাদের ফোন দিয়ে র‌্যাব কার্যালয়ে ডাকেন। এরপর তাদের জিম্মায় আমাকে ছেড়ে দেয়া হয়।’

প্রসঙ্গত, বুধবার বিকেলে মাদকবিরোধী অভিযানে ‘বিনা বিচারে হত্যা’র প্রতিবাদে শাহবাগে পূর্বঘোষিত সমাবেশ থেকে আটক করা হয় ইমরানকে। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বুধবার রাতেই তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here