পশ্চিমবঙ্গের হেদুয়ায় বাসে হস্তমৈথুন করার অপরাধে রাতারাতি গ্রেফতার করা হয়েছে দোষীকে। ফলে এনিয়ে প্রত্যাশা বাড়িয়ে দিয়েছে কলকাতা পুলিশ। তাদের ফেসবুক পেজে হস্তমৈথুনরত প্রৌঢ়ের ভিডিও পোস্ট করেছিলেন ভুক্তভোগী তরুণী। কোনও লিখিত অভিযোগ ছাড়াই শুধু ওই তরুণীর ভিডিওর ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয় দোষী প্রৌঢ়কে।

কিন্তু প্রায় সেরকমই ঘটনা আবার ঘটেছে শহরটির এক মেলায়। এবার ভিডিও রেকর্ড করেছে অন্য কেউ। ক্লিপিংসে দেখা যাচ্ছে মেলায় দাঁড়িয়ে আছে এক কিশোরী। পাশে মা বা কোনও অভিভাবিকা। গোলাপি সালোয়ার কামিজ পরা কিশোরীর পিছনে দাঁড়িয়ে এক মাঝবয়সী লোক। সে এদিক ওদিক দেখে সুযোগ বুঝে নিজের যৌনাঙ্গ কিশোরীর দেহে স্পর্শ করাচ্ছে। কেউ দেখছে না বলে একাধিকবার করতেই থাকে এই কুকর্ম।

ভিডিওতেই দেখা যাচ্ছে শেষে আর না পেরে কিশোরী তার পাশে অভিভাবিকাকে বলছে তার অভিজ্ঞতা। এরপর তারা দুজনে জায়গা বদল করে। কিশোরীর জায়গায় আসে অভিভাবিকা। তারপর আর সুবিধে করতে পারেনি ওই বিকৃতকামী।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরছে ভিডিওটি। নেটিজেনরা বলছেন এটি চুঁচুড়ায় একটি মেলা। কিন্তু সেইসঙ্গে তারা দ্বিধাবিভক্ত। কেউ কেউ বলছে‚ যে মোবাইলে রেকর্ড করছিল সে নিজে কেন প্রতিবাদ করল না ? সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করার আগে তো প্রতিবাদটুকু করতে পারত। আবার অন্যদল বলছে‚ অন্তত ভিডিওটুকুর জন্য অপরাধীকে তো শনাক্ত করা যাচ্ছে। আর হাতে মজুত প্রমাণও থাকছে।

ভিডিও ক্লিপটি পৌঁছেছে কলকাতা পুলিশের কাছে। এখন এটাই দেখার ওই বিকৃতকামীকে কতক্ষণে গ্রেফতার করা হয় ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here