বন্ধুর মা মানে তো মায়েরই মতন। অন্যদিকে ছেলের বন্ধু মানে মায়েদের কাছে ছেলের মতই। কিন্তু মার্কিন মুলুকে বন্ধুর মাকেই ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠল আর এক বন্ধুর বিরুদ্ধে। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সবে সে হাইস্কুলের গণ্ডি পার করেছে। তারপরই বন্ধুর মাকে ধর্ষণের চেষ্টার এমন অভিযোগ ওঠায় রীতিমত হতবাক সকলে।

বিভিন্ন মার্কিন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, রাত তখন সাড়ে ৮টা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেনাসিতে এক বন্ধুর বাড়িতে বেশ কয়েকজন বন্ধু হাজির হয়। রাত হয়ে আসছে দেখে বাড়ির গিন্নি ছেলে ও তার বন্ধুদের গল্প করতে দিয়ে নিজে ঘরে গিয়ে দরজা বন্ধ করে শুয়ে পড়েন।

পুলিশ জানাচ্ছে, ওই মহিলার দাবি রাত আড়াইটা নাগাদ তার ঘরে টোকা পড়ে। এত রাতে কী হল আবার? ভেবে দরজা খুলতেই তার ছেলের বন্ধু জর্ডান কার্টার জোর করে ঘরে ঢুকে পড়ে। কিছু বোঝার আগেই তাকে ধাক্কা দিয়ে বিছানায় ফেলে দেয়। তারপর তাঁর ওপর ঝাঁপিয়ে পরে তার নিম্নাঙ্গের পোশাক খোলার চেষ্টা শুরু করে।

ওই মহিলা তখন প্রাণপণে পা দিয়ে জর্ডনকে ধাক্কা মেরে ফেলে ছুটে ঘরের যেখানে তার ব্যক্তিগত পিস্তল রাখা ছিল সেখানে চলে যান। তারপর পিস্তল বার করে উঁচিয়ে ধরেন জর্ডানের সামনে। তাকে ঘর থেকে দ্রুত বেরিয়ে যেতে বলেন।

মানসিক দিক থেকে বিপর্যস্ত ওই মহিলা পরদিন সকালে পুলিশের কাছে ১৮ বছরের জর্ডনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করেন। অভি‌যোগক্রমে জর্ডনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here