মিরপুরে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ দু’টি প্রকল্পে দুই হাজার ৬০০ ফ্ল্যাট নির্মাণ করছে।

আজ গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন মিরপুরে প্রকল্প দু’টি পরিদর্শন করে আরো বলেন, নিম্ন ও মধ্যবিত্ত নাগরিকদের জন্য নির্মিত এসব ফ্ল্যাটের অধিকাংশই বিক্রি হয়ে গেছে। স্বপ্ননগর-২ প্রকল্পে প্রায় ৩০০ ফ্ল্যাট অবিক্রিত রয়েছে। এগুলো বিক্রির জন্য দরখাস্ত আহ্বান করা হয়েছে এবং প্রায় সাড়ে ৪০০ আবেদন পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, প্রকল্প দু’টি হলো স্বপ্ননগর-১ ও স্বপ্ননগর-২ এর কাজও দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে।

মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন মিরপুরে প্রকল্প দু’টি পদির্শনকালে প্রকল্প দু’টির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও পানি পরিশোধনের জন্য পৃথক ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট স্থাপনের অগ্রগতিতে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

বৃষ্টির পানিধারণ ও ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট স্থাপন এবং বাসাবাড়ির বর্জ্য ও স্যুয়োরেজ ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট স্থাপনে কিছুটা বাড়তি সময় লাগবে বলে এই ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট স্থাপনকারী প্রতিষ্ঠান জানায়।

ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্টে যেসকল বর্জ্য পরিশোধন করা হবে তা থেকে পাওয়া পানির কিছু অংশ পান করার উপযোগী করা হবে এবং কিছু অংশ গাড়ি পরিষ্কার ও বাগানে পানি দেয়ার কাজে লাগানো হবে। স্যুয়োরেজ ট্রিটমেন্ট শেষে কঠিন কোন বর্জ্য অবশিষ্ট থাকবে না। বাসাবাড়ির রান্নাঘরের বর্জ্য ট্রিটমেন্ট করে বায়োগ্যাস ও জৈব সার উৎপাদন করা হবে। এ বায়োগ্যাস কয়েকটি ভবনের রান্নার কাজে ব্যবহার করা হবে এবং উৎপাদিত জৈব সার বিক্রি করা হবে।

পরে মন্ত্রী মিরপুরের দুয়ারিপাড়ায় জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের দু’টি জমি পরিদর্শন করেন। এরমধ্যে ৪০ একর জমির ওপর পিপিপি’র আওতায় নিম্ন ও মধ্যবিত্তের নাগরিকদের জন্য আবাসিক ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। ১০০ একরের অপর জমি সমন্বিত নগর হিসেবে গড়ে তোলা হবে।

পরিদর্শনকালে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান খন্দকার আখতারুজ্জামান, সদস্য ফজলুল কবীরসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here