পৃথিবীর বাইরে প্রাণের সন্ধান নিয়ে কতভাবে যে কত ধরনের গবেষণা চালিয়েছেন বিজ্ঞানীরা তার ইয়ত্তা নেই। আমাদের প্রতিবেশী গ্রহ মঙ্গলে প্রাণের সম্ভাবনা নিয়ে বলা হচ্ছিল বহুদিন ধরে। কিন্তু মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসার মহাকাশ যান কিউরিসিটি রোভার মঙ্গলগ্রহের পৃষ্ঠে অবতরণ করে যখন বিরান ভূমি দেখতে পেয়েছিল তখন মন খারাপ হয়েছিল অনেকের। তবে এবার গ্রহটির পাথরের নমুনা পরীক্ষা করে আবারো এ নিয়ে নাকি আশাবাদী হয়ে উঠেছেন বিজ্ঞানীরা।

ন্যাশনাল জিওগ্রাফির বরাত দিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ফক্স নিউজ এবং স্পেস ডট কম সম্প্রতি জানিয়েছে, মঙ্গল পৃষ্ঠে কিউরিসিটি রোভার গুরুত্বপূর্ণ প্রমাণ পেয়েছে। যা নিয়ে নাসার বিজ্ঞানীরা গবেষণার পর মুখ খোলা জরুরী বলে মনে করছেন। নাসার মঙ্গলযান গ্রহটিতে ৩শ’ কোটি বছরের পুরনো একটি পাললিক শিলায় প্রাণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ উপাদানের অস্তিত্ব খুঁজে পেয়েছে।

মঙ্গলগ্রহের ভূমিরূপ

প্রতিবেদনে বলা হয়, সেই পাললিক শিলায় অর্গানিক মলিকিউলস সন্ধান মিলেছে। এটি এমন এক জৈব অণু যেটিতে কার্বন, হাইড্রোজেন, অক্সিজেন, নাইট্রোজেনসহ প্রাণের অস্তিত্বের স্বপক্ষে আরও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ উপাদান বহন করে। এই অর্গ্যানিক মলিকিউলসের প্রমাণ দেখে বিজ্ঞানীরা মিলিয়ে নিতে চাচ্ছেন, কোটি কোটি বছর আগে মঙ্গল গ্রহে আসলেই প্রাণ ছিল কিনা।

বর্তমানে মঙ্গল গ্রহের পরিবেশ প্রাণের উপযোগী না হলেও ভবিষ্যতে তা করা যাবে কিনা সে ব্যাপারেও আগ্রহী পৃথিবীর বিজ্ঞানীরা। মঙ্গলে বাসযোগ্য কলোনি তৈরি করাসহ সেখানে থাকার উপযোগী করে গড়ে তুলতে বর্তমানে মানুষের উপর নানা গবেষণা চালাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা।

সেখানেই শেষ নয়, মঙ্গল পৃষ্ঠকে সবুজে পরিণত করতে মহাকাশে উদ্ভিদ বিকাশের গবেষণাও চলছে জোর কদমে। মঙ্গলের কঠিন আবহাওয়ায় কিছু উদ্ভিদ নিজেদের টিকিয়ে রাখতে সক্ষম বলেও বিজ্ঞানীরা এখন মনে করেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here