টানা ভারী বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলের ফলে রাঙামাটির নানিয়ারচরের তিনটি গ্রামে পাহাড়ধসে একই পরিবারের তিনজনসহ মোট ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া নিখোঁজ রয়েছেন দুইজন। ঠিক এক বছর আগে এই দিনেই রাঙামাটির বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধসে শতাধিক মানুষ প্রাণ হারিয়েছিল।

নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান কোয়ালিটি চাকমা জানান, গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টির কারণেই আজ সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এছাড়া পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ও নানিয়ারচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ত্রিদিব কান্তিও এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন- উপজেলার বুড়িঘাট ইউনিয়নের ধরমপাশা কার্বারিপাড়ার ফুলদেবী চাকমা (৫৫), তার মেয়ে ইতি দেওয়ান (১৯), পুত্রবধূ স্মৃতি চাকমা (২৩), নাতি আয়ুব দেওয়ান (দেড় মাস), নানিয়ারচর ইউনিয়নের বড়কূলপাড়ার সুরেন্দ্র লাল চাকমা (৫৫), তার স্ত্রী রাজ্য দেবী চাকমা (৫০), মেয়ে সোনালী চাকমা (১৩), নানিয়ারচর ইউনিয়নের বড়কূলপাড়ার মহিলা মেম্বার রত্মা চাকমার ছেলে রোমেন চাকমা (১৪) ও ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের মনতলা এলাকার বিশ্বজিৎ চাকমা (৫৫)। তবে ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের হাতিমারা গ্রামের নিহত দুইজনের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

নানিয়ারচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, পাহাড়ধসে এ পর্যন্ত ১১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। উপজেলা প্রশাসন, ফায়ার সার্ভিস ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছেন।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here