একে সামনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন, তারওপর ঈদুল ফিতর। এই দুই উপলক্ষকে সামনে রেখে এখন থেকেই যার যার নির্বাচনী এলাকায় ফিরতে শুরু করেছেন মন্ত্রী এমপিরা। সবারই লক্ষ্য নির্বাচনের আগে ঈদের মতো বড় উৎসবকে ভোটারদের মন ভোলানোর কাজে ব্যবহার করা।

কয়েকজন মন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নির্বাচনী এলাকার জনগণের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে ইতিমধ্যেই অধিকাংশ মন্ত্রী ঢাকা ছাড়ছেন। এরইমধ্যে বেশ কয়েকজন পৌঁছেও গেছেন। তারা নিজ নির্বাচনী এলাকায় জনগণের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করছেন।

জানা গেছে, সদ্য ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের জাতীয় বাজেট পেশ করা অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ঈদ উদযাপন করবেন তার নির্বাচনী এলাকা সিলেটে। বৃহস্পতিবার তিনি সিলেটে যাবেন বলে জানান অর্থ মন্ত্রণালয়ের পিআর’র দায়িত্বে থাকা সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মো. সাহেদুর রহমান। সেখানে দলীয় নেতাকর্মী ও জনসাধারণের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করবেন মন্ত্রী ।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ঈদ উদযাপন করবেন তার নির্বাচনী এলাকা ভোলায়। ইতোমধ্যে তিনি ভোলায় চলে গেছেন বলে জানিয়েছেন তার একান্ত সচিব মো. ছাইফুল ইসলাম।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ঈদ উদযাপন করবেন তার নিজ নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালীর বসুরহাটে। তবে তার মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, মানুষ সুষ্ঠুভাবে বাড়ি ফেরার পরই সেতুমন্ত্রী নোয়াখালীর উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন। বর্তমানে তিনি ঢাকায় অবস্থান করে সারাদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে ভূমিকা রাখছেন।

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এবারও তার নির্বাচনী এলাকা কুষ্টিয়ায় ঈদ উদযাপন করবেন। তিনি এ উপলক্ষ্যে জনগণের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেছেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মাদ নাসিম এরইমধ্যে পৌঁছেছেন তার নির্বাচনী এলাকা সিরাজগঞ্জের কাজীপুরে। সেখানে তিনি নেতাকর্মী ও জনসাধারণের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেছেন। তবে তিনি ঈদ উদযাপন করবেন ঢাকায়।

সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর ঈদ করবেন তার নিজ নির্বাচনী এলাকায়। ইতিমধ্যেই মন্ত্রী নীলফামারিতে তার নির্বাচনী এলাকায় যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হয়েছেন বলে জানা গেছে।
তার একান্ত সচিব সরদার মো. কেরামত আলী বলেন, তিনি বর্তমানে ঢাকায় অবস্থান করছেন, তবে ঈদ উদযাপন করবেন তার নির্বাচনী এলাকা নীলফামারীতে।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল তার নির্বাচনী এলাকা লক্ষ্মীপুরে উদযাপন করবেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রীর একান্ত সচিব মোহাম্মাদ মুফিজুল ইসলাম পাটোয়ারী।

তিনি জানান, মন্ত্রী ইতোমধ্যে তার নির্বাচনী এলাকায় চলে গেছেন। তিনি সেখানে জনসাধারণের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করবেন।

খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম তার নিজ নির্বাচনী এলাকা কামরাঙ্গীচরের সাধারণ মানুষের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করবেন বলে জানিয়েছেন তার একান্ত সচিব মোহাম্মাদ হেলাল হোসেন।

তিনি জানান, ঈদুল ফিতর উপলক্ষে মন্ত্রী তার নির্বাচনী এলাকায় প্রতিটি ইউনিয়নে সাধারণ মানুষের মাঝে শাড়ি, লুঙ্গি ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেছেন।

কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী শেরপুর-৩ নির্বাচনী আসন নলকা-নালিতাবাড়ী থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য। তিনি এ এলাকায় বেশ কয়েকদিন ধরে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেছেন। তিনি ঢাকায় ঈদ উদযাপন করবেন বলে জানান তার একান্ত সচিব মোহাম্মাদ শাহজালাল।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here