দুর্নীতি মামলায় দণ্ডিত হয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ঈদ এবার কাটছে কারাগারে। তাই বিএনপি নেতাকর্মীদের যারপর নাই মন খারাপ। এমনকি ঈদের দিন যে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করে তাকে উপহার সামগ্রী ও খাবার দেবেন তারও উপায় নেই।

তবে কারাগার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তিন বারের সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর যাতে ঈদের দিন কোনো সমস্যা না হয় সেদিকে তাদের নজর রয়েছে। এমনকি ঈদের দিন তার জন্য থাকছে বিশেষ খাবারের আয়োজনও।

কারাগার সূত্র জানায়, ঈদের দিন ঘুম থেকে ওঠার পরপরই খালেদা জিয়াকে খেতে দেওয়া হবে পায়েস, সেমাই ও মুড়ি। দুপুরের খাবারে রয়েছে ভাত অথবা পোলাও সঙ্গে ডিম, রুই মাছ, মাংস এবং আলুর দম। রাতে তাকে খেতে দেওয়া হবে পোলাও, গরু অথবা খাসির মাংস, ডিম, মিষ্টান্ন, পান-সুপারি এবং কোমল পানীয়।

কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মো. জাহাঙ্গীর কবির জানান, খালেদা জিয়ার মেন্যুটা সাধারণ কয়েদিদের মতো হলেও তার জন্য রান্না হবে আলাদাভাবে। তার জন্য বিশেষ খাবারের রান্নার মসলা ও পরিমাণ উল্লেখ করা থাকবে কারা চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী। এছাড়াও এসব মেন্যুর বাইরে খালেদা জিয়া অন্য কোনো খাবার খেতে চাইলে কারা কর্তৃপক্ষকে জানাতে পারেন। তবে সেই আইটেম তাকে দিতে বাধ্য নয় কারা কর্তৃপক্ষ।

তিনি আর ও বলেন, ‘ঈদের দিন অনুমতি সাপেক্ষে পরিবারের সদস্যরাও খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে পারবেন। এছাড়াও এদিন আমরা পরিবারের খাবার একসেপ্ট করি। তবে পরিবারের আনা খাবারগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবে কারা কর্তৃপক্ষ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here