২৩ ফুট লম্বা অজগরের পেট থেকে বেরিয়ে এল বৃদ্ধার অবিকৃত মৃতদেহ। হাড় ঠান্ডা করা এ ঘটনা ঘটেছে ইন্দোনেশিয়ার মুনা দ্বীপের সুলাওয়েসি উপকূলের একটি গ্রামে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার সবজির বাগানে গিয়েছিলেন পার্সিয়াপান লওয়েলা গ্রামের বাসিন্দা ওয়া টিবা (৫৪)। রাত পর্যন্ত তিনি বাড়ি না ফেরায় খোঁজখবর শুরু করেন আত্মীয়স্বজনরা। কিন্তু সন্ধান মেলেনি। তখন গ্রামবাসীরা ওই সবজির বাগানে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন।

হঠাৎ বাগানের মধ্যে ওই নারীর স্যান্ডেল দেখতে পান একজন। তার কিছুটা দূরেই পড়েছিল প্রায় ২৩ ফুট লম্বা একটি অজগর। সেটা দেখেই সন্দেহ হয় গ্রামবাসীর। সাপটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলেন তারা। আর পেট কাটতেই চোখ কপালে। পেটের মধ্যেই ছিল ওয়া টিবার অবিকৃত দেহ। তার মানে অজগরটি ওই নারীকে একা পেয়ে আস্ত গিলে ফেলে।

স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা হামকা জানিয়েছেন, শতাধিক গ্রামবাসী মিলে সাপটিকে প্রথমে মেরে ফেলে। তারপর তার পেট কেটে ওই নারীর মৃতদেহ বের করে। মৃতদেহটিকে দেখে মনে করা হচ্ছে, প্রথমে মাথার দিক থেকে শুরু করে বৃদ্ধার পুরো দেহটাই উদরস্থ করে অজগরটি। দেহটি ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, সুলাওয়েসি উপকূলের এই এলাকা ছোট ছোট টিলায় ঘেরা। সঙ্গে রয়েছে অসংখ্য গর্ত। সব মিলিয়ে সাপ ও অন্যান্য সরীসৃপের আতুড়ঘর বলা যায় এটিকে। সাপের কামড়ে মাঝেমধ্যে মৃত্যুও ঘটে অনেকের। তবে সাধারণত ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপিন্সে ৬ মিটারের বেশি লম্বা অজগর দেখা যায় না। কিন্তু এই অজগরটি সাত মিটোরেরও বেশি লম্বা হওয়ায় আতঙ্ক আরও বেড়েছে গোটা এলাকায়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here