জনসমক্ষে প্রিয়জনকে জাপটে ধরা কি অপরাধ? এতে কি ‘অভিযুক্ত’দের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া যায়? এসব প্রশ্নের জবাব হচ্ছে, অনেক স্থানে প্রকাশ্যে চুমু ও আলিঙ্গন বেআইনি। তার জন্য গুণতে হয় জরিমানা। ভারতের রাজধানীতে প্রেমিক যুগলরা প্রকাশ্যে আলিঙ্গনরত অবস্থায় ধরা পড়লে ৫০ টাকা জরিমানা করে পুলিশ।

সম্প্রতি কলকাতায় এক যুগল প্রকাশ্যে আলিঙ্গন করে রীতিমতো গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছেন। এরপর থেকে এ নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে বিভিন্ন আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। প্রগতিশীলরা যুগলের পক্ষে দাঁড়ালেও রক্ষণশীলরা বলছেন- আলিঙ্গন একটি ব্যক্তিগত বিষয়, তা প্রকাশ্য দিবালকে না করাটাই শ্রেয়। তাই তারা মনে করেন, মেট্রোতে আলিঙ্গন করা অপরাধ এবং তার জন্য ওই যুগল উচিত শিক্ষাই পেয়েছে।

ভারতের আইনেও কিন্তু প্রকাশ্যে আলিঙ্গন বা চুমুতে রয়েছে জেল-জরিমানার বিধান। রাজ্য ভেদে অবশ্য শাস্তির বিষয়ে কিছুটা ভিন্নতা। কলকাতাভিত্তিক একটি সংবাদমাধ্যম চুমু বা আলিঙ্গন নিয়ে রাজ্যভেদে কী বিধান আছে তা নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

দিল্লি : ভারতের রাজধানীতে প্রেমিক যুগলরা প্রকাশ্যে আলিঙ্গনরত অবস্থায় ধরা পড়লে ৫০ টাকা জরিমানা করে পুলিশ। তবে উল্টোপথে নিজের পকেটও ভারি করে কোনো কোনো পুলিশ সদস্য। অর্থাৎ বাড়িতে জানিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে যুগলের কাছ থেকে ঘুষ নেন তারা।

মুম্বাই : কোনো যুগলকে প্রকাশ্যে চুমু অথবা আলিঙ্গনরত অবস্থায় ধরতে পারলে ১৯৫১ সালের বোম্বে পুলিশ আইনানুযায়ী মামলা টুকে দেওয়ার সুযোগ রয়েছে।

কলকাতা : যৌন অভিব্যক্তি নিয়ে কোনো যুগল প্রকাশ্যে চুমু অথবা আলিঙ্গন করলে তা আইনত অপরাধ। নন্দনের মতো সংস্কৃতির পীঠস্থানে চুমু অথবা আলিঙ্গন কোনো অপরাধ নয়। তবে কোনো পার্ক বা খোলামেলা স্থানে চুমু অথবা আলিঙ্গনে প্রতিবেশীর আপত্তি থাকলে সে ক্ষেত্রে আইনি ব্যবস্থা নিতে পারে পুলিশ।

বেঙ্গালুরু : প্রকাশ্যে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় ধরা পড়লে এই শহরের পুলিশ অভিযুক্তকে কেবল জিজ্ঞাসাবাদ করে।

চেন্নাই : প্রেমিকদের স্বর্গরাজ্য বলা হয় এই প্রাচীন শহরকে। আলিঙ্গনের বিষয়ে এই শহর একেবারেই উদার। এতে কারও কোনো আপত্তিও নেই। পুলিশও সেটাকে স্বভাবিক বলেই মনে করে।

হায়দরাবাদ : নিজাম আউলিয়ার এই শহর এখনও রক্ষণশীল ভাবনায় বিশ্বাসী। যুগলদের অতিঘনিষ্ঠতায় বেড়ি পরাতে ২৪ ঘণ্টা নজরদারি চালানো হয়।

পুনে : প্রকাশ্যে চুমু অথবা আলিঙ্গনে ভারতীয় দণ্ডবিধির ২৯৪ ধারা অনুযায়ী অশ্লীলতার অভিযোগে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করতে পারে পুলিশ। দোষ প্রমাণ হলে কারাদণ্ডও হতে পারে।

লক্ষ্মৌ : প্রকাশ্যে চুমু অথবা আলিঙ্গনে এই রাজ্যে নির্দিষ্ট কোনো আইনি বাধা নেই।

আমেদাবাদ : বিপি আইন ১১০ অনুযায়ী গুজরাটে প্রকাশ্যে চুমু ও আলিঙ্গন বেআইনি।

এটা পড়ে নিশ্চয়ই আপনার নচিকেতার সেই গানটি মনে পড়ছে- ‘প্রকাশ্যে চুমু খাওয়া এই দেশে অপরাধ, ঘুষ খাওয়া কখনই নয়!’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here