ঝালকাঠি-২ (সদর-নলছিটি) আসন থেকে ৬ বার স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য ও একবার রাষ্ট্রপতি পদে প্রার্থী হয়েছিলেন ক্বারী মো. শাহজাহান। কিন্তু তিন মাস আগে দ্বিতীয়বার স্ট্রোক করে এখন বাড়িতে পুরোপুরি শয্যাশায়ী অবস্থায় মানবেতর দিনযাপন করছেন সদর উপজেলার বাদলকাঠি গ্রামের এই বাসিন্দা।

এদিকে তার অসুস্থতার সুযোগ নিয়ে একটি কুচক্রি মহল ক্বারী শাহজাহানের স্বাক্ষর জাল করে আগামী সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ঝালকাঠি শহরে একটি লিফলেট ছেড়েছে। আজ ঝালকাঠি প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন ক্বারী শাহজাহানের ছোট ছেলে শেখ মো. নুরুজ্জামান।

লিখিত বক্তব্যে তিনি দাবি করেন, তার বাবা দীর্ঘদিন ধরে কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন। যে কোনো নির্বাচন এলেই তিনি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠেন। পরিবারের সদস্যরা শত চেষ্টা করেও তাকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে পারি না। এখন পর্যন্ত তিনি ৫ বার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী, ৬ বার সংসদ সদস্য প্রার্থী এবং একবার রাষ্ট্রপতি প্রার্থী হয়েছেন।

নুরুজ্জামান আরও অভিযোগ করে বলেন, আমার বাবা তিন মাস পূর্বে দ্বিতীয়বার স্ট্রোক করে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। বর্তমানে তিনি বাড়িতে শয্যাশায়ী। আর এ সুযোগে একটি কুচক্রি মহল আমার বাবার স্বাক্ষর জাল করে গত ১২ জুন একটি লিফলেট বিভিন্নস্থানে বিতরণ করেছে। ওই লিফলেটে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে কিছু মনগড়া হাস্যকর বক্তব্য এবং ঝালকাঠি-২ (সদর-নলছিটি) আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য শিল্পমন্ত্রী আলহাজ আমির হোসেন আমু এমপি সম্পর্কে কিছু মিথ্যা মানহানিকর কথা বলা হয়েছে। ওই সব বক্তব্যের সঙ্গে ক্বারী মো. শাহজাহানের ছেলে হিসেবে আমার বা আমার পরিবারের কারো কোনো সম্পর্ক নেই। একটি মহল ফায়দা হাসিলের জন্য ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করে আমাদের পরিবারকে বিপদে ফেলার এবং শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর সুনাম ক্ষুণ্ন করার চেষ্টা করছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here