নটিংহ্যামশায়ারে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচটি ইংল্যান্ডের জন্য হয়ে রইলো স্মরণীয় এক ম্যাচ। এই ম্যাচেই অজি বোলারদের দরমুজ করে ওয়ানডেতে ৪৮১ রানের রেকর্ড গড়ে তারা। আবার বোলিংয়ে এসেও মাত্র ২৩৯ রানে তারা থামিয়ে দেয় অস্ট্রেলিয়ার রানের চাকা।

ইংল্যান্ডের অর্ধেক রানও করতে না পারা অস্ট্রেলিয়া হারে ২৪২ রানের বিশাল ব্যবধানে। ইংলিশদের এর আগে সবচেয়ে বড় ব্যবধানের জয়টি ছিল ২০১৫ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ২১০ রানের। এছাড়া একই ম্যাচে ৭০ এর কম বল খেলে জোড়া সেঞ্চুরিও করেন দুই ইংলিশ ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স হেলস এবং জনি বেয়ারস্টো।

বেয়ারস্টোর ৯২ বলে ১৩৯, হেলসের ৯২ বলে ১৪৭, জেসন রয়ের ৬১ বলে ৮২ এবং অধিনায়ক ইয়ন মরগ্যানের ৩০ বলে ৬৭ রানের টর্ণেডো ইনিংসে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে রেকর্ড ৪৮১ রান করে ইংল্যান্ড। পুরো ইনিংসে ৪১টি চার এবং ২১টি ছক্কা মারে তারা।

ওয়ানডে ক্রিকেটে এর আগের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডটিও ছিল ইংল্যান্ডেরই দখলে। ২০১৬ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে তারা করেছিল ৪৪৪ রান। পাকিস্তানিদের এই লজ্জা থেকে মুক্ত করলো অস্ট্রেলিয়া।

রান তাড়া করতে নেমে ট্রাভিস হেডের ব্যাটে ঝড়ো শুরুই পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু ৩৯ বলে ৫১ রান করে হেডের বিদায় পর ভেঙে পড়ে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস। পরের ব্যাটসম্যানদের কেউই করতে পারেননি ন্যুনতম অর্ধশত। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৪ রান করেন মার্কস স্টোইনিস।

আদিল রশিদ ৪টি, মঈন আলি ৩টি এবং ডেভিড উইলি ২টি উইকেট নিলে মাত্র ৩৭ ওভারে ২৩৯ রান করেই অলআউট হয়ে যায় অজিরা। ১৪৭ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন হেলস।

আগামী বৃহস্পতিবার চেস্টার লি স্ট্রিটে ৫ ম্যাচ সিরিজের চতুর্থ ম্যাচ খেলতে নামবে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here