দুর্ঘটনার কবলে পড়া গাড়িবহর নিয়ে এক বিয়ের অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। দুর্ঘটনা থেকে খন্দকার মোশাররফ অল্পের জন্য রক্ষা পেলেও নিহত হয়েছেন ছাত্রদলের এক নেতা। আহত হয়েছেন ছাত্রদলের আরও ২৫ নেতাকর্মী।

মঙ্গলবার দুপুরে কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার আমিরাবাদ নামক স্থানে শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস বহরের দুটি মাইক্রোবাস ও একটি প্রাইভেটকারকে ধাক্কা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

উপজেলা বিএনপি ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, মোহাম্মদপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমানের ছেলের বৌভাতে যাওয়ার উদ্দেশে খন্দকার মোশাররফ দাউদকান্দিস্থ বাসভবন থেকে রওনা করেন। তার গাড়িবহরে ছিল ২৫টি মাইক্রোবাস। আমিরাবাদ ইউটার্নে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক পারাপারের সময় ঢাকামুখী শ্যামলীর একটি বাস বেপরোয় গতিতে এসে বহরের দুটি মাইক্রোবাস ও একটি প্রাইভেটকারকে ধাক্কা দেয়।

এতে ঘটনারস্থলেই নিহত হন পৌর ছাত্রদল নেতা জুয়েল প্রধান রায়হান (২০)। গুরুতর আহত হন দাউদকান্দি পৌর ছাত্রদল সভাপতি আল-আমিন সরকার, উপজেলা ছাত্রদল সভাপতি রোমান খন্দকার, ছাত্রনেতা মাজহারুল, ইমরান, দেলোয়ার, আশিক সরকার, নাহিদ, হিমেল, মো. হোসেনসহ অন্তত ২৫ জন। গুরুতর আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে জরুরি ভিত্তিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here