১৬ বছর পর বিশ্বকাপে ফেরা সেনেগাল মিশন শুরু করেছে জয় দিয়ে। মঙ্গলবার রাতে এইচ গ্রুপের ম্যাচে শক্তিশালী পোল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়েছে সাদিও মানে শিবির। ২০০২ সালের পর বিশ্বকাপে আফ্রিকান কোন দলের প্রথম জয় এটি।

র‌্যাংকিংয়ে ব্যাপক তফাত ছিল দুই দলের। সেনেগাল ২৭, পোল্যান্ড ৮। তবে ম্যাচ শেষে বিজয়ীর হাসি সেনেগাল শিবিরে। যদিও প্রথমার্ধে মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারেনি কোনো দলই। লেভানডোস্কি কিংবা কিংবা সাদিও মানে ভীতি ছড়াতে পারেননি প্রতিপক্ষের রক্ষণে।

তবে ৩৭ মিনিটে আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় সেনেগাল। ইদ্রিসা গেইয়ের শট পোলিশ ডিফেন্ডার তিয়াগো চনেকের পায়ে লেগে দিক পাল্টে জালে জড়ায়। বিশ্বকাপে পোল্যান্ডের কোনো ফুটবলারের এটাই প্রথম আত্মঘাতী গোল। দ্বিতীয়ার্ধের ৬০ মিনিটে এমবে নিয়াংয়ের গোলে ব্যবধান দ্বিগুণ করে সেনেগাল।

যদিও গোলটিতে রয়েছে বিতর্ক। কারণ বদলি খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নেমেই লম্বা পাসে পোলিশ গোলরক্ষককে বোকা বানান তিনি। যখন তিনি মাঝমাঠ বরাবর নামেন, বল তখন সেনেগালের ডি বক্সের পাশে। পোলিশ খেলোয়াড়রা তাকে মার্ক করার সুযোগ পায়নি। হঠাৎ উড়ে আসা পাস বিদ্যুৎ গতিতে পোল্যান্ড গোলরক্ষককে পাশ কাটিয়ে গোল করেন নিয়াং (২-০)।

এই গোলের দায় যেন ৮৬ মিনিটে শোধ করেন ক্রিখোভিয়াক। ফ্রি কিকে দারুণ এক হেডে বল জালে পাঠান এই মিডফিল্ডার (২-১)। তবে শেষ পর্যন্ত হার এড়াতে পারেনি লেভানডোস্কিার পোল্যান্ড। দারুণ জয়ে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করে সেনেগাল শিবিরে।

আগামী রোববার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে জাপানের বিপক্ষে খেলবে সেনেগাল। পর দিন কলম্বিয়ার মুখোমুখি হবে পোল্যান্ড।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here