শোবিজ অঙ্গনের তারকাদের জন্য চলতি বছরটা যেন দুঃস্বপ্নের মতো কাটছে। ঈদের আমেজ কাটতে না কাটতেই আবারো ঘর ভাঙলো আরেক মডেল ও অভিনেত্রীর। মাত্র চার বছর একসঙ্গে থাকার পর ভেঙ্গে গেলে অভিনেত্রী তাসনুভা তিশার সংসার।

দীর্ঘদিনের প্রেম করার পর ২০১৪ সালে পারিবারিকভাবে একটি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ড ম্যানেজার ফারজানুল হককে বিয়ে করেছিলেন তিশা। কিন্তু সম্প্রতি নিজেদের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে বনিবনা না হওয়ায় তাদের ডিভোর্স হয়েছে। এই ঘরে একমাত্র পুত্র সন্তান আনুশ। সে বর্তমানে বাবার কাছে আছে।

ফারজানুলের সঙ্গে তিশার এটি ছিলো দ্বিতীয় বিয়ে। তার আগের ঘরের ঐশী নামের একজন কন্যা সন্তান আছে।

স্বামী ফারজানুলের সঙ্গে তাসনুভা ও তার ছেলে

ডিভোর্সের কথা স্বীকার করে তিশা বৃহস্পতিবার রাতে নিজের ফেসবুকে লিখেছেন, ‘অনেকেই আমার কাছে জানতে চাইছে এবার ঈদে কেন আমার এতো কম কাজ। তো সবাইকে আমি কিছু সত্য বিষয় জানাতে চাই। গত ফেব্রুয়ারি মাসে আমাদের ডিভোর্সের লিগ্যাল ফরমালিটিজ শেষ হয়েছে। এবং গত ছয় মাস যাবত আমি প্রচণ্ড মানসিক কষ্টের মধ্যদিয়ে যাচ্ছি। ইনফ্যাক্ট আমি কয়েকমাস আগে খুব অসুস্থ হয়ে পড়ি এবং হসপিটালাইজড হই। আর এ সমস্ত সিচুয়েশনের জন্য অনেক কাজ করতে পারিনি। কারো সঙ্গে কন্টাক্টও করতে পারিনি। কষ্টের বিষয় হচ্ছে আমার এই দুরবস্থার কারণ একেকজন একেকভাবে চিন্তা করে সেটাকে নিয়ে নিজেদের মতো মিসইন্টারপ্রিট করেছে। আমার ডিভোর্সের কারণ একেবারেই আমাদের নিজস্ব কিছু ইস্যুজ। এখন আমি নতুন করে ভালোভাবে কাজ শুরু করতে চাই। আর আমার ছেলে যেন তার মায়ের কাছ থেকে ডিপ্রাইভ না হয় সেটা নিশ্চিত করব। ইনশাআল্লাহ নেক্সট ঈদে ভালো ভালো কাজ আপনাদের দিতে পারব। দোয়া করবেন।’

বিষয়টি নিয়ে ফারজানুল হকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘ডিভোর্সের বিষয়টি সত্যি। তবে এর বেশি কিছু বলার জন্য আমি এখন প্রস্তুত নই।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here