হাজারো সাংবাদিকের মতো তিনিও এসেছিলেন রাশিয়ায় বিশ্বকাপ কভার করতে। মেসি-রোনালদোদের দুনিয়ায় ক্যামেরা আর বুম হাতে চষে ফেলছিলেন এই প্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্ত। তবে এমন দুর্ভোগ পোহাতে হবে কলম্বিয়ার নারী সাংবাদিক জুলিয়েথ গঞ্জালেস থেরনকে তা বোধ হয় আঁচও করতে পারেননি। তিনি চাকরি করেন জার্মানির বিখ্যাত টিভি চ্যানেল ডয়েচে ভেলেতে।

সারানস্ক শহর থেকে বিশ্বকাপের সরাসরি সম্প্রচারে ছিলেন জুলিয়েথ গঞ্জালেজ থেরান। কিন্তু কথা বলার সময়ই ফ্রেমে ঢুকে আসেন এক ব্যক্তি। করেন শ্লীলতাহানি। চুম্বন করেন নরী সাংবাদিককের গালে। তারপর হাসিমুখে বেরিয়ে যান।

জুলিয়েথ ওই পরিস্থিতিতেও পেশাদারি আচরণ করেন। জার্মান টিভির পক্ষ থেকে পরে ইনস্টাগ্রামে ওই ঘটনার ভিডিও শেয়ার করা হয়েছে। তারা এটাকে ‘যৌন আক্রমণ’ হিসেবেই বলছে। শুধু তাই নয়, প্রশ্ন উঠছে নারী সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিয়েও। সেটা সার্বিকভাবে বিশ্বকাপের নিরাপত্তাকেও প্রশ্নের মুখে দাঁড় করাচ্ছে। চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাশিয়ায়।

ইনস্টাগ্রাম পোস্টে জুলিয়েথ লেখেন, ‘রেস্টপেক্ট করুন। এমন আচরণ মোটেই কাম্য নয়। আমরা সবাই পেশাদার, সমান মূল্যবান। ফুটবল থেকে আনন্দ আমিও পাই। তবে কতটা আনন্দ করা যায়, তার সীমা জানতে হবে। তা যেন মাত্রাছাড়া হয়ে হেনস্থা না হয়ে ওঠে।’

পরে এ ব্যাপারে জার্মান টিভিতে আলোচনায় তিনি বলেন, ‘সম্প্রচারের জন্য দুই ঘণ্টা ধরে আমি ওখানে প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। তখন কোনো বাধা পাইনি। আমরা যখন লাইভ করছিলাম, তখন এই ব্যক্তি পরিস্থিতির সুযোগ নেন। কিন্তু লাইভ শেষ করে পরে আর তাকে খুঁজেও পাইনি।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here