বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে আইসল্যান্ডের বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনার ড্রকে অনেকেই অঘটন বলে ব্যাখ্যা করেছিলেন। ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে হারের পর বলতে বাধ্য হচ্ছি, আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হলে আমি অবাকই হব।

আইসল্যান্ড প্রথম ম্যাচেই দেখিয়েছিল, কী ভাবে আর্জেন্টিনাকে আটকাতে হয়। অঙ্কটা খুব সহজ। লিওনেল মেসিকে খেলতে দেওয়া চলবে না। বৃহস্পতিবার নিজনি নভগোরোদ স্টেডিয়ামে ক্রোয়েশিয়াও সেই রণনীতি নিয়েই খেলল। বার্সেলোনায় মেসির সঙ্গে খেলেন ইভান রাকিতিচ। অধিনায়ক লুকা মদ্রিচ খেলেন রিয়াল মাদ্রিদে। ওরা জানতেন, কী ভাবে ছন্দ নষ্ট করে দিতে হয় আর্জেন্টিনা অধিনায়কের। ম্যাচের শুরু থেকেই ক্রোয়েশিয়া ফুটবলারদের প্রধান লক্ষ্য ছিল, মেসি যেন বল ধরতে না পারেন। আর্জেন্টিনা কোচ হর্হে সাম্পাওলি ছকে বদলেও ক্রোয়েশিয়ার চক্রব্যূহ ভাঙতে ব্যর্থ।

বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে মেসি খেলেছিলেন সের্খিয়ো আগুয়েরোর পিছন থেকে। এ দিন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক ছিলেন তার পছন্দের জায়গা রাইট উইংয়ে। কিন্তু তাতে লাভ কিছুই হয়নি। ১২ মিনিটে এনসো পেরেসের পাস দিয়েছিলেন ক্রোয়েশিয়ার বক্সের মধ্যে ফাঁকায় দাঁড়ানো মেসিকে। অবাক হয়ে দেখলাম, মেসি বলে পা ছোঁয়াতেই পারলেন না। তার যেন খেলাতেই মন ছিল না। মনে হচ্ছিল, ১০ নম্বর জার্সি পরে মেসির মতো দেখতে কেউ খেলছিলেন!

আর্জেন্টিনা কোচের রণনীতিও অবাক করার মতো। ক্রোয়েশিয়ার রক্ষণ ভাঙার জন্য আর্জেন্টিনার অস্ত্র হওয়া উচিত ছিল উইং দিয়ে আক্রমণ করা। অথচ সাম্পাওলি এ দিন ডি মারিয়ার মতো দ্রুতগতির ফুটবলারকে দলেই রাখেননি। শুধু তাই নয়। গোলরক্ষক উইলফ্রেডো কাবায়েরোর ভুলে আন্তে রেবিচ এগিয়ে দেন ক্রোয়েশিয়াকে। তার ১ মিনিটের মধ্যেই সাম্পাওলি তুলে নেন আগুয়েরোকে। নামালেন ছন্দে না থাকা গন্সালো হিগুয়ানকে। ঘুরে দাঁড়ানো তো দূরের কথা আরও দুটো গোল খেল দুবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। ৮০ মিনিটে গোল করেন মদ্রিচ। আর ম্যাচের একেবারে শেষ মুহূর্তে গোল রাকিচিতের।

আর্জেন্টিনার ফুটবলে অবক্ষয় অনেক দিন আগেই শুরু হয়ে গেছে। অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি ডিয়েগো মারাডোনার দেশ। যার অর্থ, প্রতিশ্রুতিমান ফুটবলার উঠে আসছে না। এ বারের আর্জেন্টিনা দলে অধিকাংশেরই বয়স ত্রিশের উপরে। এই মুহূর্তে যা পরিস্থিতি, তাতে একমাত্র নাইজেরিয়াই বাঁচাতে পারে মেসিদের।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here