আর্জেন্টিনা প্র্যাকটিসে সোমবার সকাল-সকাল গিয়ে যে দৃশ্যটা দেখা গেল, প্রেক্ষাপট-পরিস্থিতি বিচারে তা চমকপ্রদ তো বটেই। একই সঙ্গে তাৎপর্যপূর্ণও। প্র্যাকটিসে তখন ফুটবলাররা নিজেদের মধ্যে বল পাসিং করছেন। আসল ট্রেনিং শুরু তারপর। গ্যালারিতে বসা জেভিয়ার মাসচেরানোকে পাওয়া গেল। মন দিয়ে বুট পরছেন। মূর্তিমান চমক হাজির হলেন এরপর কোচ হোর্হে সাম্পাওলি!

টিমের প্র্যাকটিসে কোচ উপস্থিত হবেন, এটা বলার মতো কিছু নয়। খুব স্বাভাবিক ব্যাপার। কিন্তু সেই কোচ যদি টিমের-সহ অধিনায়কের কাছে নোটবুক সমেত দৌড়ে যান? আর তারপর নোটবুকে আঁকিবুঁকি টেনে কিছু একটা বোঝাতে শুরু করেন টিমের-সহ অধিনায়ককে? আশ্চর্য তো তখন লাগে বটেই।

আর্জেন্টিনা শিবিরে বর্তমানে মেসি-মাসচেরানোরা হলেন ‘প্রভু’। আর সাম্পাওলি ‘ভৃত্য’! আসলে আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশন প্রেসিডেন্ট ক্লদিও তাপিয়া অনুরোধে সাম্পাওলিকে যখন নাইজেরিয়া ম্যাচে কোচ হিসেবে মেনে নিয়েছিলেন ফুটবলাররা, অলিখিতভাবে আরও একটা জিনিস ঠিক হয়ে গিয়েছিল। জর্জ সাম্পাওলি কোচের চেয়ারে বসবেন। কিন্তু মাঠে নাইজেরিয়ার বিরুদ্ধে যে টিমটা মঙ্গলবার নামবে, সেটা তার হবে না। সেটিটা করবেন মেসি আর মাসচেরানো মিলে।

শোনা গেল, লিওনেল মেসির রুমমেট হলেও মঙ্গলবার আর্জেন্টিনা প্রথম একাদশে থাকছেন না সের্জিও অ্যাগুয়েরো। শুরু করছেন গঞ্জালো হিগুয়েন। আর্জেন্টিনা সাংবাদিকদের কেউ কেউ বলছিলেন, মার্কাস রোহোরও টিমে ফেরার ভাল সম্ভাবনা রয়েছে। পরিবর্তন আরও একটা হচ্ছে। আর সেটাও হচ্ছে সাম্পাওলির এতদিনের গোঁয়ার্তুমিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে। কাবায়েরো আউট। ‘বাজপাখি’ ইন! ‘বাজপাখি’ বলতে আরমানি। আর্জেন্টিনার আরেক গোলকিপার।

সাম্পাওলির অদ্ভুত কাবায়েরো প্রীতির জন্য যার প্রথম দু’টো ম্যাচ খেলাই হয়নি। এবং দু’টো ম্যাচেই দেশকে ডুবিয়েছেন কাবায়েরো। আরমানি মানছেন, পরিস্থিতিটা কঠিন। কিন্তু গোটা আর্জেন্টিনার সমর্থন যদি সঙ্গে থাকে, ভাল কিছু সম্ভব।

আর্জেন্টিনায় ‘বাজপাখি’ থাকলে তার মঙ্গলবারের প্রতিপক্ষ যে আবার ‘সুপার ঈগলস!’ তাছাড়া আর্জেন্টিনা আজ রাতে জিতলেও যে নিশ্চিন্তে পরের রাউন্ডে কোয়ালিফাই করে যাবে, এমনও নয়। এদিনই আইসল্যান্ড নামবে ক্রোয়েশিয়ার বিরুদ্ধে। আর লুকা মদ্রিচের দেশকে যদি কোনওভাবে হারিয়ে দেয় বরফের দেশ, আর্জেন্টিনা জিতলেও আইসল্যান্ডের সঙ্গে পয়েন্ট দাঁড়াবে একই – চার। তখন আপনাআপনি জুড়ে যাবে গোলপার্থক্যের অঙ্ক।

দেখা হবে, সেখানে কে এগিয়ে? আইসল্যান্ড নাকি আর্জেন্টিনা? একে তো এ সব জটিল অঙ্ক। তার মধ্যে নাইজেরিয়ার হুঙ্কার, চোরা বিদ্রূপ সব চলছে। শোনা গেল, নাইজেরিয়া প্র্যাকটিসে জারনট রোহ নামের এক সাপোর্ট স্টাফ টিম নামলেই সুর করে এক গান ধরছেন। আর্জেন্টিনা সমর্থকদের যে গানটা খুব, খুব পরিচিত। ‘ভামোস, ভামোস, আর্জেন্টিনা!’

নাইজেরিয়া ফুটবল ফেডারেশন বিবৃতি পেশ করে বলেছে, আর্জেন্টিনা যেন মনে রাখে মঙ্গলবার প্রচণ্ড লড়াইয়ের সামনে তারা পড়তে চলেছে। নাইজেরিয়া কোনওভাবে হাল ছেড়ে তো দেবে না, উলটে যা বোঝার বুঝে নিয়ে পরের রাউন্ডে যাওয়ার সর্বাত্মক চেষ্টা করবে! এমন হুঙ্কারের সামনে শিরদাঁড়া সোজা করে ম্যাজিক দেখাতে পারবেন তো মেসি? সেই প্রশ্নেই উত্তর পেতেই প্রহর গোনা শুরু ফুটবলপ্রেমীদের।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here