মায়ের শাড়ি নিয়ে খেলতে গিয়েই বিপত্তি। সিঁড়ির রেলিংয়ে শুকাতে দেওয়া ছিল ভিজা শাড়ি। সেটিকেই জড়িয়ে খেলছিল ছোট্ট শিশু পূজা মজুমদার। আচমকাই খেলতে খেলতে শাড়িটি তার গলায় চেপে যায়। এর জেরেই ফাঁস লেগে মৃত্যু হয় সাত বছরের শিশুকন্যার।

সোমবার রাতে মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিমবঙ্গের জগদ্দল থানার ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের নতুনপল্লি এলাকায়।

ভারতীয় পত্রিকাগুলো জানায়, পূজা স্থানীয় একটি স্কুলে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী। এদিন রাতে তার বোন পম্পা যখন ঘরের মধ্যে পড়তে ব্যস্ত তখনই বাইরের সিড়ির রেলিংয়ে খেলা করছিল পূজা। সেখানেই মেলে দেওয়া ছিল শাড়ি। সেটি নিয়েই চলছিল খেলা। খেলতে খেলতে কখন যে সেই কাপড় গলায় ফাঁসের আকার নিয়েছে বুঝতেও পারেনি শিশুটি। একটা সময় গলায় মারণ ফাঁসের মত চেপে বসে শাড়ি। জ্ঞান হারিয়ে ফেলে পূজা। এদিকে অনেকক্ষণ ধরে বোনের সাড়াশব্দ না পেয়ে তাকে খুঁজতে যেতেই বিষয়টি নজরে আসে পম্পার। বোনের চিৎকারে পড়শিরা ছুটে আসেন। সংজ্ঞাহীন শিশুটিকে উদ্ধার করে ভাটপাড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, মৃত শিশুটির বাবা ভারতের অন্য রাজ্যে কাজ করেন। মা বাড়ি বাড়ি পরিচারিকার কাজ করেন। তাই দু’বোনে একা একাই বাড়িতে ছিল। প্রতিদিন এমনই থাকে তারা। কিন্তু এই ধরনের মর্মান্তিক ঘটনা ঘটতে পারে আঁচ করেননি হতভাগ্য মা বা প্রতিবেশীরা।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here