আয়ারল্যান্ডে গিয়ে দেশটির বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়ান্টির প্রথমটিতে শেষ বলে রোমাঞ্চকর জয় পেয়েছে বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটাররা। ক্ষণে ক্ষণে বদলানো ম্যাচে শেষ পর্যন্ত ৪ উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে বাংলাদেশ।

এর আগে গত জুনেও প্রথমবার নারীদের এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠে ছয় বারের চ্যাম্পিয়ন ভারতকে শেষ বলে হারিয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেছিল সালমা-রুমানারা।

শেষটার মতো খেলার শুরুতেও জিতেছিল বাংলাদেশ। টসে জিতে আয়ারল্যান্ডকে প্রথমে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় বাংলাদেশ। নির্ধারিত ২০ ওভারে আয়ারল্যান্ড ৮ উইকেট হারিয়ে ১৩৪ রান করে। এরমধ্যে বাংলাদেশের প্রথম নারী ক্রিকেটার হিসেবে পাঁচ উইকেট নিয়ে রেকর্ড স্পর্শ করেন দেশসেরা পেসার জাহানারা আলম।

যদিও স্বাগতিকদের করা ১৩৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি বাংলাদেশ। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই সাজঘরে ফিরে যান শামীমা সুলতানা। দ্বিতীয় উইকেটে প্রাথমিক ধাক্কা সামাল দেন আয়েশা রহমান ও ফারজানা হক। দুজনে মিলে গড়েন ৩৪ রানের জুটি। ২৩ বলে ২৪ রান করেন আয়েশা।

তৃতীয় উইকেটে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন ফারজানা ও নিগার সুলতানা। তবে ফারজানা ধীরগতির ব্যাটিং চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায় বাংলাদেশের জন্য। ইনিংসের ১৩তম ওভারে ২৫ বলে ১৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন ফারজানা। বাংলাদেশের সংগ্রহ তখন ৩ উইকেটে ৬৮ রান।

শেষের ৭ ওভারে টাইগ্রেসদের জয়ের জন্য দরকার ছিল ৬০ রান। জয়ের আশা বাঁচিয়ে রেখে ব্যাট করছিলেন নিগার সুলতানা। দারুণ শুরু করেও খুব বেশি কিছু করতে পারেননি রোমানা আহমেদ। ৬ বলে ৭ রান করে ফিরে যান তিনি। জয়ের জন্য বাংলাদেশের তখন প্রয়োজন ২৮ বলে ৪৭ রান।

তখনই ম্যাচের দখল পুরোপুরি নিয়ে নেন অলরাউন্ডার ফাহিমা খাতুন। নিগার সুলতানাকে সাথে নিয়ে ১৪ বলে ২৭ রান যোগ করেন তিনি। দলের পক্ষে ৪৬ রানের ইনিংস খেলে আউট হন নিগার সুলতানা। তবে অপর প্রান্তে বাংলাদেশের জয়ের আশা বাঁচিয়ে রেখে খেলছিলেন ফাহিমা।

শেষের ১২ বলে জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ১৮ রান। ১৯তম ওভারেই ১৪ রান নিয়ে সমীকরণ সহজ করে নেন ফাহিমা ও সানজিদা ইসলাম। শেষ ওভারে জয়ের জন্য বাকি ছিল মাত্র ৪ রান। তখনই দেখা দেয় চরম নাটকীয়তার।

জাহানারার পাঁচ উইকেট প্রাপ্তির উল্লাস

শেষ ওভারের প্রথম দুই বলে ২ রান নিয়ে সমীকরণ নিজেদের পক্ষেই রাখেন ফাহিমা-সানজিদা। তৃতীয় বলে রান নিতে ব্যর্থ হন ফাহিমা। চতুর্থ বলেই ১ রান নিয়ে স্কোর সমান করেন তিনি। পঞ্চম বলে জয়সূচক রানটি নিতে গিয়ে রানআউট হয়ে সাজঘরে ফিরে যান সানজিদা। অনিশ্চয়তা দেখা দেয় বাংলাদেশের জয়ের ব্যাপারে। তবে পরম দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে শেষ বল থেকে প্রয়োজনমাফিক ১ রান নিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করেন ফাহিমা। শেষ পর্যন্ত ৩ চারের মারে ১৮ বলে ২৬ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি। বাংলাদেশ পায় ৪ উইকেটের অসাধারণ জয়।

এর আগে ইসোবেল জয়েসের ব্যাটে ভর করে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৩৪ রান করে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড। ৪১ বল থেকে ৪১ রান করেন তিনি। এছাড়া গ্যাবি লুইস ২৮ ও লরা ডেনালি করেন ২২ রান।

বাংলাদেশের ইতিহাসের প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৫ উইকেট নেয়ার কৃতিত্ব দেখান জাহানারা। ৪ ওভার বল করে ২৮ রান খরচায় ৫ উইকেট নেন তিনি। এছাড়া সালমা খাতুন ও খাদিজা তুল কুবরা নেন ১টি করে উইকেট।

শুক্রবার সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলবে দুই দল।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here