কলেজ জীবনের প্রথম দিনেই বহিরাগত এক বখাটে যুবকের হামলার শিকার হয়েছেন একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রী। সোমবার দুপুরে মাগুরা সরকারি হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ ক্যাম্পাসে এই ঘটনা ঘটে। তাকে মাগুরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

মাগুরা শহরতলীর পারনান্দুয়ালী গ্রামের বাসিন্দা ওই ছাত্রীর বাবার অভিযোগ, একই গ্রামের রুহুল বিশ্বাসের ছেলে মাদকাসক্ত ও বখাটে যুবক প্রান্ত বিশ্বাস (২২) দীর্ঘ ৪ বছর ধরে তার মেয়েকে উত্যক্ত করে আসছে।

সর্বশেষ সোমবার দুপুরে সে সরকারি হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ ক্যাম্পাসে তার পিছু নেয় এবং এক পর্যায়ে তার মেয়ের ব্যাগ ধরে টান দেয়। এর প্রতিবাদ করলে ওই যুবক তার মেয়ের ওপর চড়াও হয়ে কিল-ঘুষি, চড়-থাপ্পড় মারতে থাকে। এ সময় ওই ছাত্রী জ্ঞান হারালে সহপাঠিরা তাকে চিকিৎসার জন্য মাগুরা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

তিনি আক্ষেপ করে বলেন, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির পর তার মেয়ে কলেজে প্রথম ক্লাস করতে গিয়েছিলো। কলেজ জীবনের প্রথম দিনেই এ ধরনের ঘটনায় সে মানষিকভাবে ভেঙে পড়েছে। মেয়ের ওপর হামলাকারী যুবকের উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানিয়ে তিনি এ ঘটনায় মামলা করবেন বলে জানান।

মাগুরা ২৫০ শয্যা সদর হাসাপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মশিউর রহমান জানান, চড়-থাপ্পড়ের আঘাতে ওই কলেজ ছাত্রী কানে আঘাত পেয়েছেন। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ইএনটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের কাছে চিকিৎসা নেওয়ার জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

মাগুরা সরকারি হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর দেবব্রত ঘোষ জানান, তিনি বিষয়টি পুলিশকে অবিহিত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছেন। পাশাপাশি পরিবারকে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বলেছেন। কলেজের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে সহযোগিতা করা হবে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে মামলা হলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here