বিশ্বকাপের দ্বিতীয় পর্বে আজ মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড ও ল্যাটিন আমেরিকান জায়ান্ট কলম্বিয়া। আজ মস্কোর স্পাতার্ক স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ১২টায় শেষ মুখোমুখি হবে দুই দল। যদিও ইতিহাস নিজেদের পক্ষে নিয়েই আজ মাঠে নামবে ইংল্যান্ড। কারণ কলম্বিয়ার বিপক্ষে কখনও হারেনি তারা।

এর আগে ৫ বার দেখা হয়েছিল দুই দলের। তার মধ্যে ৩ বার জিতেছে ইংলিশরা। বাকি দুই ম্যাচ ড্র হয়েছিল। বিশ্বকাপে একবারই দেখা হয়েছিল তাদের, ১৯৯৮ সালে। সেবার ২-০ গোলে জিতেছিল ইংল্যান্ড।

তবে ইতিহাসই নয় এবারকার আসরেও দুর্দান্ত খেলছে ইংল্যান্ড। প্রথম ম্যাচে তিউনিসিয়ার বিপক্ষে ২-১ গোলে জয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচে নবাগত পানামাকে উড়িয়ে দিয়েছে ৬-১ গোলে। তবে শেষ ম্যাচে বেলজিয়ামের কাছে ১-০ গোলে হেরে হয় গ্রুপ রানার্স আপ। অন্যদিকে জাপানের কাছে হেরে বিশ্বকাপ শুরু করে কলম্বিয়া। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে পোল্যান্ডের সাথে ৩-০ গোলে ও সেনেগালের সাথে ১-০ গোলের জয় নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে শেষ ষোলতে ওঠে তারা।

আজকের ম্যাচে নিজেদের সেরা তারকা হামিস রদ্রিগেজকে পাচ্ছেনা কলম্বিয়া। সেনেগালের বিপক্ষের ম্যাচে চোট পেয়ে মাঠে বাইরে চলে যেতে হয়েছে রদ্রিগেজকে। পাশাপাশি ইংলিশ অধিনায়ককে নিয়েও সতর্ক থাকতে হবে তাদের। ২৪ বছর বয়সী কেন ২ ম্যাচে করেছেন ৫ গোল। চলতি আসরে যা এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। জয় পেতে হলে কেনের গোল ক্ষুধাকে থামাতে হবে লাতিন দলটিতে।

মাঠে নামার আগে ইংল্যান্ডের বিষয়ে যথেষ্ট সতর্ক কলম্বিয়ার কোচ হোসে পেকারম্যান। ইংল্যান্ডের শক্তি ও সামর্থ্য সম্পর্কে তাই সমীহ নিয়েই বললেন, ‘আমরা জানিয়, শেষ ষোলতে আসা প্রতিটি দলই ভাল। আমরা বিশ্বের সেরা ১৬ দল নিয়ে কথা বলছি। অবশ্যই ইংল্যান্ডের ভালো অথবা খারাপ দিন হতে পারে। ইংল্যান্ড একটি তরুণ দল, চমৎকার ছন্দে আছে। এবং তারা যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী।’

এদিকে বিশ্বকাপে শিষ্যদের দারুণ পারফরম্যান্সে প্রচণ্ড আত্মবিশ্বাসী ইংলিশ কোচ গ্যারেথ সাউথগেট। বলেছেন, ‘আমার মনে হয়, আমরা মানুষের সাথে দলের যোগাযোগ ঘটাতে পেরেছি। আমরা উত্তেজনা সৃষ্টি করতে পেরেছি। আমরা এমন একটি ধারায় খেলছি যা ইংল্যান্ডের তরুণ খেলোয়াড়দের সামর্থ্য প্রকাশ করতে পেরেছে। এবং আমরা এটা চালিয়ে যেতে চাই।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here