প্রযুক্তির উন্নয়নে সময়ের সাথে তাল মেলাতে কম্পিউটার, ল্যাপটপ, ট্যবলেট, মোবাইল ইত্যাদি ব্যবহারের কারণে শরীরের মহা মূল্যবান অঙ্গ চোখ দুটোর ওপর পড়ছে বাড়তি চাপ । তাই চোখকে সুস্থ রাখে এমন কিছু খাবারের কথা জেনে নিন এখান থেকে।

গাজরের তুলনা নেই

গাজরে রয়েছে বিটা ক্যারোটিন, যা চোখের জন্য ভালো। অর্থাৎ চোখের জ্যোতি বাড়ায় এবং ছানি পড়া দীর্ঘায়িত করে। তাই ছোটবেলা থেকেই শিশুদের গাজর খাওয়ার অভ্যাস করা প্রয়োজন। তাছাড়া বিভিন্ন আলু নানাভাবে খাওয়া হলেও, মিষ্টি আলু সেভাবে খাওয়া হয় না। অথচ এই মিষ্টি আলুতেও রয়েছে যথেষ্ট পরিমাণে বিটা ক্যারোটিন।

সবুজ শাক-সবজি

আজকের যুগে স্বাস্থ্য সচেতন সবাই কম-বেশি জানেন যে, নিজেকে সবুজ বা তরুণ রাখার মূলমন্ত্র হলো সবুজ শাক-পাতা খাওয়া। চোখের স্বাস্থ্যের জন্যও প্রয়োজন সবুজ শাক-সবজি, কারণ এ সবে আছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আর লুটিন, যা কোনো নীল আলো বা লাইটকে চোখের রেটিনার ওপর প্রভাব ফেলা থেকে বিরত করে।

টমেটো

অতিরিক্ত আলোতে কাজ করার ফলে যে সমস্যা হয়, তা কমায় টমেটোয় থাকা লাইকোপিন। চোখের জন্য যা দরকার, যেমন আঁশ, খনিজ ক্যারোটিন – এ সবই রয়েছে রসালো টমেটোতে।

মুরগির মাংস

মুরগির মাংসে রয়েছে প্রচুর জিঙ্ক এবং ভিটামিন ‘বি’, যা চোখের স্বাস্থ্য রক্ষায় বিশেষ ভূমিকা রাখে। মুরগির মাংস নানাভাবে খাওয়া যেতে পারে। এমন কি ছোটরাও খেতে পারে এই মাংস।

কমলালেবু

কমলালেবুতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে লুটিন এবং ভিটামিন ‘সি’, যা চোখের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। ভিটামিন ‘সি’ চোখের দৃষ্টি স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে।

ডিমের কুসুম

ডিমের কুসুমের গুণের কথা কম-বেশি সবাই আমরা জানি। এতে রয়েছে লুটিন এবং যথেষ্ট পরিমাণে জিংক, যা চোখকে ‘মাসকুলার ডিজেনারেশন’ সমস্যা থেকে বাঁচায়। এ সমস্যা সাধারণত ৫০ বছর বয়সের পরে দেখা দেয়।

ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড

যেসব মাছে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে, সেগুলো চোখের জন্য বেশ উপকারী। স্যামন, সার্ডিন, ম্যাকরেল, কড, টুনা – এ সব মাছ চোখের দৃষ্টিশক্তি স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে এবং চোখকে নানা সমস্যা থেকে দূরে রাখে। শরীরে প্রোটিনের অভাব হলে নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই মাছ, মাংস, দুধ ইত্যাদি খেতে হবে আর তা একেবারে ছোটবেলা থেকেই।

রঙিন ফল ও সবজি

হলুদ, সবুজ, কমলা রঙের, অর্থাৎ গাজর, কমলা, পেঁপে, ক্যাপসিকাম, ভুট্টা ইত্যাদি বিভিন্ন রঙের ফলমূল ও শাক-সবজি, যেগুলোয় ভিটামিন ‘এ’ আছে, এমন খাবার প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় থাকা উচিত। নিয়মিত এই কাজটি করলে চোখের স্বাস্থ্যের যত্ন নেয়া হবে। এ কথা বলেন জার্মানির বন শহরের চক্ষু বিশেষজ্ঞ ফ্রাঙ্ক হলৎস।

বাঁধাকপি

বাঁধাকপিতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ যা চোখের জন্য ভালো। বাঁধাকপি দামে সস্তা এবং সব জায়গায় পাওয়া যায় তাছাড়া সহজে নষ্ট হয় না।

চোখকে গুরুত্ব দিন

সুন্দর এই পৃথিবীতে আমরা সুন্দর, স্লিম আর সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য কত কী-ই না করি। অথচ অবহেলিত হয় আমাদের চোখ দুটো। চোখের বাহ্যিক সৌন্দর্যের জন্য কসমেটিক্সের কথা যেভাবে ভাবা হয়, চোখের ভেতরের স্বাস্থ্যের কথা সেভাবে গুরুত্ব দিয়ে চোখের জন্য প্রয়োজনীয় ভিটামিনযুক্ত খাবার যথেষ্ট পরিমাণে খেলে চোখ থাকবে সুস্থ। দৃষ্টিশক্তি হারালে কিন্তু এই সুন্দর ভুবনের প্রায় সবই মনে হবে বৃথা, জীবনকে মনে হবে মূল্যহীন!

সূত্র : ডয়চে ভেল

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here