সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার পোরজনা গ্রামের আবদুল কাদের ফকির ওরফে টনক খুলু গ্রাম থেকে বিতাড়িত হন একযুগ আগে। পরে তিনি ডায়া গ্রামে বসতি স্থাপন করেন। এর পর সেই গ্রামের কিছু প্রভাবশালীর সহযোগিতায় বাউল তরিকার পীর ব্যবসা শুরু করেন। আড়ালে চলে মধুচক্রও। তাই তার বাড়িতে দূর-দূরান্ত থেকে মুরিদ বেশে খারাপ নারী ও খদ্দেরের আনাগোনা শুরু হয়।

সম্প্রতি মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়লে গ্রামে বহিরাগত মাদকসেবীর আনাগোনা চরম হারে বেড়ে যায়। এতে গ্রামের লোকজন চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে পড়ে। এ থেকে রক্ষা পেতে গত শুক্রবার রাতে পুলিশের সহযোগিতায় ভণ্ড পীরের আস্তানায় হানা দেয় গ্রামবাসী। সেখান থেকে খদ্দেরসহ এক খারাপ নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশ জানায়, উপজেলার হাবিবুল্লাহনগর ইউনিয়নের ডায়া পূর্বপাড়া গ্রামের টনক খুলু নামের ভণ্ড পীরের বাড়িতে অভিযানে যায় পুলিশ। এ সময় বাজে নারী নিয়ে বাড়ির একটি কক্ষে ফুর্তি করার সময় আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়ে ভণ্ড পীর। পাশাপাশি ঘরের অপর একটি কক্ষ থেকে পীরের এক সহযোগীকে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা হয়। এর মধ্যে পুলিশকে ফাঁকি দিয়ে ভণ্ড পীর ও এক নারী পালিয়ে যায়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- শাহজাদপুর উপজেলার শরিষাকোল গ্রামের মন্টু মণ্ডল (৪৭) ও মাগুড়া জেলার মোহাম্মদপুর থানার কানুটিয়া গ্রামের তরুণী (২৫)। এ ঘটনায় শাহজাদপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাচ্চু বিশ্বাস বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। শনিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাহজাদপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খাজা গোলাম কিবরিয়া।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here