গ্রামের সাধারণ মানুষের চেয়ে ঢাকার বস্তিবাসীদের আয় বেশি বলে জানিয়েছে বিশ্বব্যাংক। এ জন্য ঢাকামুখী হওয়ার প্রবণতা চাইলেও কমানো যাবে না বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি।

বৃহস্পতিবার সকালে হোটেল সোনারগাঁওয়ে আয়োজিত বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদন প্রকাশনা অনুষ্ঠানে সংস্থাটির দক্ষিণ এশিয়ার প্রধান প্রতিবেদক মার্টিন রামা এসব কথা বলেন।

বিশ্বব্যাংকের ‘টুওয়ার্ড গ্রেটার ঢাকা : এ নিউ আরবান ডেভেলপমেন্ট প্যারাডিগেম ইস্টওয়ার্ড’ শীর্ষক প্রতিবেদনে ঢাকার উন্নয়নের অপার সম্ভাবনার কথা তুলে ধরা হয়।

প্রতিবেদনে ঢাকার উন্নয়নে নতুন তিনটি বিষয়ের কথা বলা হয়েছে। বিষয়গুলো হলো বন্যা প্রতিরোধে পূর্বাঞ্চলে বালু নদীতে বাঁধ দেয়া, উন্নত যোগাযোগ পথ ও দ্রুত শহর প্রস্থানের ব্যবস্থা করা যেন ঘনত্ব কম হয় এবং বিশ্বমানের একটি ব্যবসায়িক অঞ্চল গড়ে তোলা যেন পূর্বাঞ্চলে বিনিয়োগ বৃদ্ধি পায়।

বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর চিমিও ফান বলেন, ‘ঢাকার বৃহৎ অবস্থানগত কারণে একে মেগাসিটি করার জন্য ঢাকার পূর্বাঞ্চল একটি বড় ভূমিকা রাখতে পারে। কিন্তু এ জন্য সুচিন্তিত প্রস্তাব, পারস্পারিক সাহায্য ও যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে এটি বাস্তবায়িত হবে।’

চিমিও ফান আরও বলেন, ‘যে নতুন তিনটি প্রস্তাব দেয়া হয়েছে, এর ফলে ৫০ লাখ লোকের বাসস্থান ও প্রায় ১৮ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হবে। এগুলো বাস্তবায়নে প্রায় ১ হাজার ৫০০ কোটি ডলার ব্যয় হবে। কিন্তু এর ফলে ২০৩৫ সালের মধ্যে বছরে ৫ হাজার ৩০০ কোটি টাকার অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি পাবে। এ ছাড়া জনজীবনেও এর ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।’

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ১৯৮০ সালে ঢাকায় ৩০ লাখ লোক বসবাস করলেও বর্তমানে ১ কোটি ৮০ লাখ লোক বসবাস করছে। এটি ২০৩৫ সালে ২ কোটি ৫০ লাখে পরিণত হবে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here