বিয়ের আগে বর ও কনের রক্তে থ্যালাসেমিয়া ও মাদকের অস্তিত্ব আছে কিনা, তা পরীক্ষা করে মেডিক্যাল সার্টিফিকেট দাখিল বাধ্যতামূলক চেয়ে একটি রিট করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী সৈয়দা শাহিন আরা লাইলীর পক্ষে অ্যাডভোকেট একলাছ উদ্দিন ভূঁইয়া হাইকোর্টের সংশিষ্ট শাখায় এ রিটটি দায়ের করেন।

আবেদনে বলা হয়, থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত ব্যক্তির সঙ্গে একই রোগে আক্রান্ত কোনো রোগীর বিয়ে হলে অনাগত সন্তান বিকালঙ্গ হওয়ার সম্ভাবনা আছে বলে বিশেষজ্ঞরা মতামত দিয়েছেন। এ ছাড়া দেশে প্রায় ৭০ লাখ লোক মাদকাসক্ত। এর মধ্যে শতকরা ৬৫ ভাগই তরুণ। বিভিন্ন পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বর্তমানে বিবাহ বিচ্ছেদের অন্যতম কারণ মাদকাসক্তি।

আর বিভিন্ন সিটি করপোরেশনের সালিশী পরিষদের তথ্য অনুযায়ী, নারীদের অভিযোগ হচ্ছে- স্বামীর শারীরিক অক্ষমতা। কারণ ইয়াবা, হেরোইন, অ্যালকোহলসহ বিভিন্ন মাদক সেবনে পুরুষত্বহীন হয়ে যাচ্ছে তারা। বিদ্যমান নিকাহ নামার ৩ ও ৪ নম্বর দফায় বর-কনের জন্ম সনদের পাশাপাশি ১৭ নম্বর দফায় ডাক্তারি সার্টিফিকেট (ডোপ টেস্ট) বাধ্যতামূলক হলে তাদের ভবিষ্যৎ সংসার ও অনাগত সন্তানের জীবন রক্ষা পাবে।

রিট আবেদনটি শিগগিরই হাইকোর্টে শুনানির জন্য উত্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন আইনজীবী একলাছ উদ্দিন ভূঁইয়া। এতে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, আইন সচিব, স্বাস্থ্য সচিব, পুলিশ মহাপরিদর্শক, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে বিবাদী করা হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here