প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেছেন, প্রবাসে কর্মরত নারীকর্মীরা অনেক ভালো আছেন। সৌদি আরবের পরিবেশ খাদ্যাভাস ও বিভিন্ন কারণে অনেক সময় তারা ফেরত আসতে বাধ্য হন। তবে যারা ফেরত আসছেন তারা আবারও যেতে চান। গতকাল জাতীয় সংসদ অধিবেশনে সংরতি আসনের সদস্য মাহজাবীন মোরশেদের ৭১ বিধিতে আনা নোটিশের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী বলেন, রমজানে সৌদি আরব সরকারের জাকাত তহবিলের সহায়তায় নারীকর্মীরা দেশে ফেরত আসার সুযোগ পেয়ে থাকেন। এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য সৌদি সরকারের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের যোগাযোগ অব্যাহত রয়েছে। সর্বশেষ গত ১৪ ও ১৫ মার্চ সৌদি আরবের রিয়াদে উভয় দেশের ‘জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ’ কমিটির বৈঠক হয়। এ ছাড়া পরবর্তী বৈঠকের প্রক্রিয়া চলছে।

মন্ত্রী বলেন, আমরা দালাল বা মধ্যস্বত্তভোগীদের দূরত্ব লাঘবে নানাবিধ জনসচেতনাতমূলক কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করে করছি। বিভিন্ন জেলায় সভা, সেমিনার ও লিফলেট বিতরণ করছি। তাছাড়া গৃহ কর্মপেশায় বিদেশি নারীকর্মীদের বয়স ৩৫-৩৮ বছর নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ছাড়া নারীকর্মীদের কমপে তৃতীয় শ্রেণি পাস বাধ্যতামূলক করা হয়েছে; যেন তারা নাম, মোবাইল নম্বর, লিখতে ও পড়তে পারেন। তাছাড়া যে দেশে যাবে সেই দেশে যাওয়ার আগে ওই দেশের ভাষা, কৃষ্টি, কালচার, গৃহকর্মের বিস্তৃত প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।

নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেন, নারীকর্মীদের প্রশিণের জন্য আগামী ১৫ জুলাই পাঁচটি বিভাগের টিটিসিতে দুই মাসব্যাপী প্রশিণ দেওয়া হবে। অন্যদিকে গৃহকর্ম পেশায় বিদেশ ফেরত নারীকর্মীদের নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে প্রশিক হিসেবেও। আমরা নারী শ্রমিক প্রেরণের ক্ষেত্রে সর্তকভাবে পদক্ষেপ নিচ্ছি। এ ক্ষেত্রে কোনো রিক্রুটিং এজেন্সির বিরুদ্ধে নির্ধারিত বয়সসীমার বাইরে অথবা প্রশিণবিহীন কিংবা অবৈধভাবে নারীকর্মীকে বিদেশে পাঠানোর অভিযোগ পাওয়া গেলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

তাছাড়া প্রবাসী নারীকর্মীদের সমস্যা ও অভিযোগ দ্রুত সমাধান করতে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিণ ব্যুরোতে (বিএমইটি) অভিযোগ সেল গঠন করা হয়েছে, চালু করা হয়েছে প্রবাসী কল সেন্টার।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here