সিলেট মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিমকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। দলীয় সিদ্ধান্ত না মেনে সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হওয়ায় তাকে বহিষ্কার করা হচ্ছে বলে দলটির স্থায়ী কমিটির এক সদস্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গতকাল রাতে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সিনিয়র নেতাদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। দু-একদিনের মধ্যে বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে। এ ছাড়াও সিলেটে জোটের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে শরিক জামায়াতে ইসলামী প্রার্থী দেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন নেতারা। তবে তারা আশা করেন, জামায়াত প্রার্থী সরে দাঁড়াবেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান প্রমুখ।

সূত্র জানায়, বৈঠকের আগে রাত সাড়ে ৮টার দিকে সিলেট সিটি নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সমন্বয়ক ও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাক বদরুজ্জামান সেলিমকে ফোন করেন। তিনি জানতে চান, নির্বাচন থেকে সরে দাড়াবেন কিনা। তখন সেলিম জানান, তিনি নির্বাচনে থাকবেন। পরে আমীর খসরু তাকে জানান, দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে না নিলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এর পর বৈঠক করে সেলিমকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেন সিনিয়র নেতারা। সিদ্ধান্তের বিষয় লন্ডনে থাকা দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে জানানো হলে তিনিও একমত পোষণ করেন।

এদিকে কেন্দ্র থেকে ফোন করার বিষয়টি স্বীকার করে সিলেট মহানগর সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম বলেন, ‘রাতে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী ফোন করেছিলেন। আমাকে মেয়র পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা বলেন। আমি বলেছি- কেন্দ্র আরিফুল হক চৌধুরীকে মনোনয়ন দিয়ে ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সিলেটের সিংহভাগ নেতাকর্মীই আমাকে মনোনয়ন দেওয়ার পক্ষে ছিলেন।’

এক প্রশ্নের জবাবে সেলিম বলেন, ‘আমি দল থেকে অব্যাহতি চেয়ে রবিবার মহাসচিব বরাবর চিঠি পাঠিয়েছি।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here