ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফররত বাংলাদেশের কয়েকজন ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে আবারো শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ উঠেছে। সহযোগীদের সঙ্গে ঝগড়া বিবাদ থেকে শুরু করে হাতাহাতিও নাকি হয়েছে বলে গুঞ্জন রয়েছে। আর এই সবকিছুতে কলকাঠি নেড়েছেন পেসার রুবেল হোসেন। ফলে দ্বিতীয় টেস্ট শেষেই ওয়ানডে দলে না রেখে তাকে দেশে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে।

যদিও এ বিষয়ে কিছুই স্বীকার করেননি ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান ও মিনহাজুল আবেদিন নান্নু। এ বিষয়ে আকরাম খানকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘কই নাতো, আমিতো এমন কোনো ঘটনার কথা শুনিনি। রুবেল শৃঙ্খলা বিরোধী কোনো কাজ করেছে এমন ঘটনা আমার জানা নেই।’

প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু অবশ্য খানিক কৌশলী। তিনি হ্যাঁ-না কিছু বলেননি। শুধু কূটনৈতিক ভাষায় শুধু বলেন, রুবেল প্রত্যাশা মেটাতে পারেননি। তাই তাকে হয়তো দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘যদিও ১৬ জনের ওয়ানডে দলে রুবেল আছে। তারপরও আমরা তাকে ফিরিয়ে আনার চিন্তা ভাবনা করছি। মোস্তাফিজ নিজেকে ফিট প্রমাণ করেছে। তাই আমরা ১৬ জনের স্কোয়াড থেকে একজন কমিয়ে আনার কথা ভাবছি।’

এদিকে রুবেলের বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে নতুন কোচ স্টিভ রোডস আর অধিনায়ক সাকিব আল হাসান দুজনই তার ব্যাপারে অসন্তুষ্ট। কোচ স্টিভ রোডস যে তিনদিন আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের কাছে ফোন করেছিলেন, সেখানেও নাকি রুবেলের কথা বলেছিলেন।

অভিযোগ উঠেছে, ১৪০ কিলোমিটার গতিতে বল করার সামর্থ্য থাকলেও অ্যান্টিগা টেস্টে রুবেল গড়পড়তা ১৩০ কিলোমিটারের আশপাশে বল করেছেন। যা দেখে হতাশ হয়েছেন কোচ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here