কোটা আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়া বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তরিকুল ইসলামকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে পা ভেঙ্গে দেওয়া ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল-মামুনের একটি বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। বেসরকারি টিভি চ্যানেল মাছরাঙা টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তরিকুলকে নৃশংসভাবে পেটানোর জন্য তার কোনো অনুশোচনা নেই বলে জানিয়েছেন মামুন।

কোটা সংস্কারের দাবিতে বিক্ষোভের সময় গত ২ জুলাই তরিকুলকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান গেটের সামনে রাস্তায় ঘিরে ধরে পেটায় ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। গণমাধ্যমে প্রকাশিত ছবিতে দেখা যায়, ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন মিলে যখন লাঠি নিয়ে তরিকুলকে পেটাচ্ছিল তখন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মামুন হাতুড়ি দিয়ে তরিকুলের পিঠে ও পায়ে বেশ কয়েকবার আঘাত করেন।

ভাঙা পা আর মেরুদণ্ডে ব্যাথা নিয়ে এখনো হাসপাতালে কাঁতরাচ্ছেন তরিকুল

এ ঘটনার ভিডিও ও ছবি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পরও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি। তাই অনেকেই ধারণা করেছিলেন মামুন গা ঢাকা দিয়েছেন। কিন্তু মাছরাঙা টিভিকে দেওয়া বক্তব্যে মামুন গর্বের সাথে জানিয়েছেন, তিনি ক্যাম্পাসেই আছেন। নিশ্চিন্তে ঘোরাফেরা করছেন। তার কোনোরকম মানসিক চাপও নেই এবং এই কৃতকর্মের জন্য তার কোনো অনুশোচনাও নেই।

তার এই বক্তব্যের ভিডিওটি মাছরাঙার ফেসবুক পাতায় ৮ জুলাই পোস্ট করার পর তা ভাইরাল হয়ে যায়। এ পর্যন্ত ২ লাখেরও বেশি বার দেখা হয়েছে এটি। শেয়ার হয়েছে ৩ হাজার বার। খবর ডয়চে ভেলের।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here