ক্রোয়েশিয়া সমর্থকরা যখন ইতিহাস গড়ার আনন্দে আত্মহারা, তখন ইংল্যান্ড সমর্থকরা চোখের জলে একাকার। কেউ কেউ তোয়ালেতে সেই যে মুখ ঢেকেছেন, আর তা দেখাচ্ছেনই না। আবার অনেকেই হতবিহ্বল। গতকাল বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনাল শেষে মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে ছিল এমনই আনন্দ বেদনার চিত্র।

‘ফুটবল কামিং হোম’ শ্লোগান দিয়ে যে ইংলিশ সমর্থকরা এদিন মাঠ কাঁপাচ্ছিলেন ম্যাচ শেষে তাদের করুণ মুখগুলো ছিল দেখার মতো। পাশেই ক্রোয়েট সমর্থকদের উল্লাস আর বিয়ারের ফোয়ারা ইংলিশ সমর্থকদের বুকে যেন বিঁধছিল শেল হয়ে।

শুধু সমর্থকরাই কেনো, ম্যাচ শেষে ইংল্যান্ডের হ্যারি কেইন, মার্কাস রাশফোর্ড, জন স্টোনসদের চোখের পানিও তখন মুছে দেয়ার কেউ ছিল না। তবে কোচ গ্যারেথ সাউথগেট ছিলেন অনেক শান্ত। তিনিই এগিয়ে গিয়ে খেলোয়াড়দের সান্ত্বনা দেন।

১৯৯০ সালের পর ২৮ বছর বিরতি দিয়ে প্রথমবার সেমিফাইনালে ওঠার পরই ইংলিশ মিডিয়ায় শুরু হয় গ্যারেথ সাউথগেটদের উচ্চসিত প্রশংসা। সেমিফাইনাল খেলার আগেই বিশ্বকাপ জয় করে ফেলেছে যেন ইংলিশরা। সবারই চিন্তা-চেতনা, মগজে-মননে প্রবেশ করে গিয়েছিল, ১৫ জুলাই লুঝনিকি স্টেডিয়ামে সোনালি ট্রফিটা উুঁচু করে ধরবেন হ্যারি কেইনই।

১৯৬৬ সালের পর ৫২ বছর বিরতি দিয়ে আবারও বিশ্বজয়ীর আসনে বসবে ইংল্যান্ড। ১৯৬৬ সালে নিজেদের মাটিতে বিশ্বকাপ জয়ের পর যেভাবে ট্রফি হাতে ধরা অধিনায়ক ববি মুরকে কাঁধে করে হেঁটেছিলেন সতীর্থরা, সেভাবে ছবি এডিট করে ববি মুরের জায়গায় হ্যারি কেইনকে বসিয়ে দিয়ে উৎসবের প্রস্তুতিও সেরে রেখেছিল ইংলিশরা।

কিন্তু ক্রোয়েট বিষে যে নীল হতে হবে তা এখনো বিশ্বাস করে উঠতে পারছে না ইংলিশ সমর্থকরা। তাইতো হারের বেদনা আরো বেশি করে রক্তক্ষরণ ঘটাচ্ছে তাদের মনে।

খেলোয়াড়দেরও সান্ত্বনা দেওয়ার ভাষা জানা নেই কোচের

বিষয়টি নিয়ে ম্যাচ শেষে ইংলিশ কোচ বলেন, ‘এই মূহুর্তে খেলোয়াড়রা ভালো অনুভব করবে, এমন কিছু করার সাধ্য নেই আমার। বুঝতে পারছি, আমরা বড়, অনেক বড় একটা ম্যাচ হেরেছি। এটা থেকে আসলে খুব দ্রুত বেরিয়ে আসতেও চাই না। আমরা যে সুযোগটা পেয়েছিলাম, সেটি এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। এই মূহুর্তে আমরা সবাই হারের কষ্টটা অনুভব করছি।’

তবে ইংল্যান্ডের এই দলটা যে এতদূর এসেছে, সেটির জন্য গর্বিত সাউথগেট। বাস্তবতা মেনে নিয়েই সান্ত্বনা খুঁজছেন ইংলিশ কোচ, ‘আমরা কি ভেবেছিলাম, এই অবস্থানে আসতে পারব? সত্যি করে বললে, আমার মনে হয় কেউই ভাবেনি। ১৮ মাস পেছনে ফিরে তাকান, কেউ আশা করেনি যে আমরা বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলব।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here