রাশিয়ায় চলমান বিশ্বকাপের প্রায় প্রতিটি ম্যাচেই গ্যালারি আলো করে রাখেন বিভিন্ন দেশের সুন্দরীরা। টিভি ক্যামেরাগুলো আলাদাভাবে সেসব সুন্দরীকে খুঁজে নেয়। তবে এবার টিভিতে সুন্দরীদের দর্শনে লাগাম টানার কথা বলেছেন ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা।

ফিফা বলছে, যৌন হয়রানি বা নির্াতন বর্তমান বিশ্বের অনেক বড় মাথাব্যথার কারণ। অনুন্নত দেশ থেকে শুরু করে উন্নত দেশ পর্যন্ত বিশ্বের প্রায় সব খানেই হরহামেশা ঘটে যৌন হয়রানি বা নির্যাতনের ঘটনা। বিশ্বকাপ ফুটবলের মতো সুন্দর এক আয়োজনে যাতে এমন কোন দাগ না লাগে, তাই এখন থেকে বিশ্বকাপ দেখতে আসা সুন্দরী নারীদের টিভি ক্যামেরায় দেখাতে বারণ।

শুধু খেলোয়াড়রাই নয়, মাঠ মাতাচ্ছেন তারাও

ফিফার শীর্ষ কর্মকর্তা ফেডরিকো আদিয়েচি এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে ফিফার এই নিয়ম কেবল চুক্তিবদ্ধ ব্রডকাস্টারদের ক্ষেত্রেই বলবৎ হবে বলে জানান তিনি। আদিয়েচি বলেন, ‘আমরা শুধুমাত্র বাছাইকৃত ব্রডকাস্টারদের বলেছি এমনটা আর করতে না। আমাদের চুক্তিবদ্ধ ব্রডকাস্টার যারা ছিল তাদের এই ব্যাপারে সতর্ক করেছি।’

নারীদের সম্মান রক্ষার্থে ও বিশ্বকাপের সম্মান-মর্যাদা সমুন্নত আরও আগেই এমন সিদ্ধান্ত নেয়ার উচিৎ ছিল বলে মনে করেন আদিয়েচি। তবে এ ব্যাপারে আগে কোন পদক্ষেপ না নিলেও, অন্যান্য অসামঞ্জস্য সবকিছুর ব্যাপারে তৎপর রয়েছে ফিফা এমনটাই জানান ফিফার কর্মকর্তা।

এদিকে হালনাগাদ ছবির জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ‘গেটি ইমেজেস’ বিশ্বকাপের সুন্দরী নারীদের নিয়ে একটি আলাদা বিভাগই খুলে বসেছিল। যেখানে বসেছিল বিশ্বের নানান দেশের নানান সুন্দরী সমর্থকদের ছবির বাহার। ফিফার নিষেধাজ্ঞা আসার পর তারাও নিজেদের ভুল বুঝতে পেরেছে এবং ওয়েবসাইট থেকে সেই বিভাগটি মুছে দিয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here