টি-টোয়ান্টি বিশ্বকাপ খেলার পথে একটি মাত্র বাধা ছিল বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের সামনে। বাছাই পর্বের সেমিফাইনালে গতকাল সেই স্কটল্যান্ড বাধাটি উড়িয়ে দিয়েছে সালমা-রুমানারা। নেদারল্যান্ডসের আমস্টালভিনে ভিআরএ গ্রাউন্ডে বোলারদের সাঁড়াশি বোলিংয়ে স্কটল্যান্ডকে ৪৯ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে তারা।

১৪ জুলাই ফাইনালে আয়ারল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। আট দলের বাছাই পর্ব থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে আসতে পারাটা হবে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের জন্য এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় অর্জন। কিছুদিন আগে ভারতকে হারিয়ে এশিয়া কাপের শিরোপা জয়ের সাফল্যের পথ ধরে এবার আট জাতি টুর্নামেন্টেরও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পথে বাংলাদেশ।

গ্রুপপর্বের দুই ম্যাচেই প্রায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল বিশ্ব টি-টোয়েন্টির টিকিট। গ্রুপপর্বের তিন ম্যাচে জিতেই হয়েছিল গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন। উদ্বোধনী দিনে পাপুয়া নিউগিনিকে ৮ উইকেট ও পরের দিন স্বাগতিক নেদারল্যান্ডসকে ৭ উইকেটে হারিয়ে দেয় বাংলাদেশ। গ্রুপের শেষ ম্যাচে ফাহিমা খাতুনের হ্যাটট্রিকে আরব আমিরাতকে ৮ উইকেটে হারিয়ে সেমিফাইনালে উঠে যায় বাংলাদেশ।

ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় স্কটল্যান্ড। ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১২৬ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। ৩৬ বলে সর্বোচ্চ অপরাজিত ৩১ রান করেন নিগার সুলতানা। ১৬ বলে ২২ রান করেন ওপেনার শামীমা সুলতানা। ২৭ বলে ২০ রান করেন আয়েশা রহমান। ১৮ বলে ১৯ রান করেন সানজিদা ইসলাম এবং ১৬ বলে ১৫ রান করেন ফাহিমা খাতুন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে স্কটল্যান্ড ওপেনার সারাহ ব্রুইস ৩১ রান করেন। ২২ বলে ২১ রান করেন অধিনায়ক কেথেরিন ব্রুইস। এছাড়া বাকি ব্যাটসম্যানরা আর দাঁড়াতেই পারেননি বাংলাদেশের বোলারদের সামনে। ২ উইকেট করে নেন নাহিদা আক্তার এবং রুমানা আহমেদ। ১ উইকেট করে নেন সালমা খাতুন এবং ফাহিমা খাতুন। একজন হলেন রানআউট।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here