মাদারীপুর কালকিনি উপজেলার পৌর মেয়র এনায়েত হোসেন হাওলাদারকে কুপিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার রাত ২টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। পরে আহত মেয়রকে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

আহত মেয়র ও তার পরিবারের সদস্যরা জানান, রাতে মেয়র এনায়েত হোসেন নিজের কক্ষে ঘুমিয়ে ছিলেন। এ সময় একটি মাইক্রোবাস ও ২টি মোটরসাইকেল যোগে ১০ থেকে ১২ জন মুখোশপড়া দুর্বৃত্ত বাড়ির পেছনের গেইট ভেঙে ভেতরে ঢুকে। পরে তারা কক্ষের জানালা ভেঙে ঘুমন্ত মেয়রের মাথায় রাম-দা দিয়ে আঘাত করে। এ সময় মেয়র তার বিছানায় থাকা শটগান দিয়ে গুলি ছুঁড়লে দুর্বৃত্তরা কয়েকটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পালিয়ে যায়।

পরে মেয়রের পরিবারের অন্য সদস্যরা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে কালকিনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। তার মাথায় ও হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জখম হয়েছে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন কালকিনি উপজেলা চেয়ারম্যান তৌফিকুজ্জামান শাহীন, মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন কুমার দেব, কালকিনি থানার ওসি কৃপা সিন্দু বালা, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মীর মামুনুর রশীদ, সরদার লোকমান হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট ওবাইদুর রহমান সোহেল তালুকদারসহ অনেকে।

মেয়র এনায়েত হোসেন হাওলাদার বলেন, পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। তবে আমার কাছে শটগান থাকায় দুর্বৃত্তরা মারাত্মক কিছু করতে পারেনি। এই ঘটনার সঙ্গে আমার প্রতিপক্ষরা জড়িত বলে সন্দেহ করছি। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ওসি কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, ঘটনার পর তাৎক্ষণিক আমরা মেয়রের বাড়ি সংলগ্ন এলাকায় পুলিশ মোতায়ন করেছি। মেয়রের পরিবার থেকে মামলা দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া কালকিনি উপজেলায়ও অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here