সারা বিশ্ব আজ তাকিয়ে মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামের দিকে। কারণ আজই নির্ধারণ হয়ে যাবে আগামী চার বছরের জন্য কোন দেশ হবে ফুটবলের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। আর এই খেতাব দ্বিতীয়বারের মতো ছিনিয়ে নিতে উন্মত্ত যোদ্ধার মতো লড়াইয়ে নামবে ফ্রান্স। আর প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের ট্রফ্রিটা নিজেদের করে নিতে মরিয়া হয়ে লড়াই করবে ক্রোয়েশিয়া।

লুঝনিকি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত নয়টায় শিরোপার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে দুই দল।

আগেই জানা, ফাইনালে ফ্রান্স তাদের ঐতিহ্যবাহী নেভি ব্লু রঙের জার্সি পরে মাঠে নামবে। অন্যদিকে, দেশের পতাকার ঠিক মাঝখানে থাকা ঐতিহ্যবাহী লাল-সাদা রঙের জার্সি পড়ে মাঠে নামবে ক্রোয়েশিয়া।

এবারের বিশ্বকাপে ফ্রান্সকে তুমুল আশাবাদ থাকলেও প্রথম রাউন্ডে দলটি কিন্তু গ্রুপ পর্বের শুরুটা খুব একটা ভালো করতে পারেনি দলটি। প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১-০ গোলের জয় পায় ফ্রান্স। দ্বিতীয়ও ম্যাচেও বেশ কষ্টে জয় আসে পেরুর বিপক্ষে। এবারো ব্যবধানটা ১-০। শেষ ম্যাচে হোচট খায় ডেনমার্কের বিপক্ষে। ড্যানিশদের বিপক্ষে গোল শূন্য ড্র নিয়েই দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠে দিদিয়ের দেশমের দল।

তবে দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলায় ফেরে ফরাসিরা। গ্রিজম্যান-এমবাপ্পে ঝড়ে আর্জেন্টিনাকে ৪-৩ গোলে হারায় দলটি। শেষ আটের লড়াইয়ে উরুগুয়ে ২-০ গোলে হারায় ফ্রান্স। সেমিফাইনালে বেলজিয়ামের মুখোমুখি হয় দেশমের দল। লুকাকু-হ্যাজার্ডদের ১-০ গোলে হারিয়ে ১৯৯৮ সালের পর আবার ফাইনালে ওঠে ফ্রান্স।

অন্যদিকে ক্রোয়েশিয়া ফাইনালে ওঠবে এমনটা স্বপ্নেও ভাবেনি কেউ। তবে গ্রুপ পর্বে নাইজেরিয়াকে ২-০ আর দ্বিতীয় ম্যাচে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ৩-০ গোলে জয় পেলে দলটির পক্ষে সমর্থন বাড়ে। শেষ ম্যাচে আইসল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করে দলটি।

শেষ ষোলোতে কঠিন পরীক্ষা পড়ে ক্রোয়েশিয়া। ডেনমার্কের বিপক্ষে ম্যাচটা শেষ হয় ১-১ গোলে। এরপর শ্বাসরুদ্ধকর টাইব্রেকারে ৩-২ গোলে জিতে কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠেন রেকিটিচ-মডরিচরা। কোয়ার্টার ফাইনালেও টাইব্রেকার বাধা পার হতে হয় ক্রোয়েশিয়াকে। এবার ৪-৩ ব্যবধানে জিতে দলটি। সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়ে প্রথমবার বিশ্বমঞ্চের ফাইনালে ওঠে ইউরোপের ছোট দেশটি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here