ইন্দোনেশিয়ায় কুমিরের হামলায় এক ব্যক্তি নিহতের পর প্রায় ৩০০ কুমিরকে মেরে ফেলেছে স্থানীয়রা। সোমবার এ তথ্য জানিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।

১৪ জুলাই পপুয়া প্রদেশে কুমিরের আক্রমণে ৪৮ বছর বয়সী সুগীতা নিহত হন। পুলিশ জানিয়েছে, তার পায়ে কুমিরের কামড়ের দাগ এবং শরীরে লেজের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

আধিবাসী এলাকার কাছে এ ধরনের খামার থাকায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন স্থানীয়রা। এ ঘটনার পরপর তারা পাশের পুলিশ স্টেশন ঘেরাও করে।

স্থানীয় সংরক্ষণ সংস্থার প্রধান বাশার মানুলাঙ্গ বলেন, খামার কর্তৃপক্ষ নিহতের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে সম্মত হয়েছে। এ বিষয়ে নিহতের পরিবারের সঙ্গে আমাদের একটি চুক্তি হয়েছে। আমরা তাদের সমবেদনা জানিয়েছি বলে জানান বাশার।

কিন্তু স্থানীয়রা এতে সন্তুষ্ট ছিলো না। তারা ছুরি, শাবল নিয়ে খামারে হামলা চালায় এবং ২৯২টি কুমিরকে হত্যা করে। কুমিরগুলোর আকার ছিলো চার ইঞ্চি থেকে দুই মিটার পর্যন্ত। পুলিশ জানিয়েছে, তারা স্থানীয়দের হামলা ঠেকাতে ব্যর্থ হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা ঘটনার তদন্ত করছে এবং হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। সোরং জেলার পুলিশ প্রধান সিডান সুত্রানা বলেন, আমরা প্রত্যক্ষদর্শীদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছি।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here