হজযাত্রী ও হজ এজেন্সির জন্য বদলি কোটা বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ না করলে এ বছর প্রায় তেরো হাজার মুসল্লির হজ পালন অনিশ্চিত হয়ে পড়বে। এমন শঙ্কা প্রকাশ করেছে হাব ও বাংলাদেশ হজযাত্রী কল্যাণ পরিষদ।

তবে হজ অফিস বলছে, কোনোভাবেই এত বেশি কোটা প্রয়োজন নেই। সরকার এ বছর হজে বদলি কোটা নির্ধারণ করেছে চার শতাংশ। এদিকে আজ কোনো ঝামেলা ছাড়াই ১৯টি ফ্লাইট ছেড়ে যাচ্ছে।

১৪ জুলাই থেকে শুরু হওয়া এবারের হজযাত্রা এখন পর্যন্ত নির্বিঘ্ন ও ভোগান্তিহীনভাবেই চলছে। ফ্লাইট শিডিউল ঠিক থাকায় হজযাত্রীরা নির্দিষ্ট সময়েই হজ পালন করতে জেদ্দার উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ছেন। সব মিলিয়ে আশকোনা হজ ক্যাম্পে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা হজযাত্রীরা এখন পর্যন্ত বেশ স্বস্তিতেই আছেন।

তবে সমস্যা দেখা দিচ্ছে হজযাত্রীদের বদলি কোটা নিয়ে। যা এখন পর্যন্ত চার শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে।

হাব ও হজযাত্রী কল্যাণ পরিষদের দাবি, কোটা বাড়িয়ে পনেরো শতাংশ না করলে প্রায় ১৩ হাজার হজযাত্রী এবার হজ পালন থেকে বঞ্চিত হতে পারেন।

এ দাবির সঙ্গে একমত নয় হজ অফিস। তারা বলছেন, গতবছর পর্যন্ত পরে কোটা বাড়ানো গেলেও এবার তা কিছুটা জটিল। গত বছর প্রথমে চার শতাংশ থাকলেও পরে বদলি কোটা বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করেছিল ধর্ম মন্ত্রণালয়।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here