স্পেনের কর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বিবাদ মিটিয়ে সমাধানে পৌঁছালেন পর্তুগীজ তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। এজন্য কর কর্তৃপক্ষকে মোট ১৬.৮ মিলিয়ন পাউন্ড দিতে সম্মত হয়েছেন তিনি। সেই সঙ্গে দুই বছরের জন্য স্থগিত সাজা মেনে নিয়েছেন।

স্পেনের গণমাধ্যম জানায়, গত সপ্তাহে স্পেনের কোষাগারে রোনালদো ১২.১ মিলিয়ন পাউন্ড জমা দিয়েছেন। প্রশাসনিক ব্যয় বাবদ আরো ৪.৭ মিলিয়ন পরিশোধ করবেন। আর দুই বছরের স্থগিত সাজা মেনে নেয়ায় তাকে জেলে থাকতে হচ্ছে না। স্পেনের আইনানুযায়ী, দুই বছর বা তার কম সময়ের শাস্তি অবেক্ষণের (প্রথম শাস্তি থেকে মুক্তি দিয়ে পর্যবেক্ষণে রাখা, যাতে একই অপরাধ আর না করে) মাধ্যমে কাটানো যায়।

স্পেনের গণমাধ্যমের এই খবর সত্য হলো দীর্ঘ এক বছর ধরে চলা রোনালাদোর বিরুদ্ধে কর ফাঁকির মামলার তদন্তের ইতি ঘটবে। স্পেনের কর কর্তৃক্ষের দাবি, সচেতনতার সাথে ইচ্ছাকৃতভাবে রোনালাদো তার ইমেজ-স্বত্ব থেকে ২০১১ সাল থেকে ২০১৪ সালের মধ্যে ১২.৮ মিলিয়ন কর ফাঁকি দিয়েছেন।

পাঁচবার ব্যালন ডি’অর বিজয়ী সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ তারকার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি স্পেনে ট্যাক্স ফাঁকি দেয়ার জন্য ইমেজ-স্বত্ব ব্রিটিশ ভার্জিন আইল্যান্ডে একটি ভুয়া কোম্পানিকে দিয়ে দেন।

তবে রোনালদো বরাবরই এই অভিযোগ অস্বীকার করেন। শেষ পর্যন্ত সম্ভাব্য বিচারের মুখোমুখি হওয়ার হাত থেকে বাঁচার জন্য কর কর্তৃপক্ষের প্রায় সব দাবি মেনে নেন ৩৩ বছর বয়সী এই ফুটবলার।

স্পেনের কর কর্তৃপক্ষ এর আগে একাধিক খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধে কর ফাঁকির অভিযোগ আনে। তাদের মধ্যে রয়েছেন আর্জেন্টাইন ও বার্সেলোনা তারকা লিওনেল মেসি, সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ কোচ হোসে মরিনহো, বার্সেলোনার সাবেক ফুটবলার চিলির অ্যালেক্সিস সানচেজ, রিয়াল মাদ্রিদের লুকা মডরিচ ও সাবেক বার্সেলোনা তারকা নেইমার।

রোনালদো ইতোমধ্যে স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে ইতালিয়ান জায়ান্ট জুভেন্টাসে যোগ দিয়েছেন। এর ফলে স্পেনের সঙ্গে তার দীর্ঘ নয় বছরের সম্পর্কে ইতি টানা হলো।

টানা তিনবার রিয়াল মাদ্রিদকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ এনে দেয়ার পর রোনালদোর এমনভাবে চলে যাওয়ার পেছনে অনেকে অনেক কারণ খুঁজছেন। তবে লা লিগা প্রেসিডেন্ট হাভিয়ের তেবাস মনে করেন স্পেনের ট্যাক্স আইনের কারণেই তিনি চলে যাচ্ছেন।

তেবাস বলেন, ‘আমি মনে করি আর্থিক আনুকূল্যতার কারণে তিনি ইতালি গিয়েছেন। আমাদের এখানে আর্থিক প্রতিযোগিতা একটা সমস্যা। সবগুলো বড় লিগের মধ্যে স্পেনে খেলোয়াড়দের ট্যাক্স সিস্টেম সবচেয়ে বাজে।’

তিনি আরো বলেন, ‘অন্য জায়গায় যে করের হার অনেক কম তা নয়। তবে যখন এটা বড় অংকের হিসাব হয় তখন সামান্য পার্থক্যটাও বিশাল পরিমাণে পরিণত হয়।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here