বাথরুমের মধ্যে স্ত্রীকে মারতে মারতে প্রথমে অজ্ঞান করে ফেলেন। তারপর মৃত্যু নিশ্চিত করার জন্য স্ত্রীর গোপনাঙ্গে বিদ্যুতের শক দেন ভারতের ছত্তীসগঢ় সশস্ত্র বাহিনীর এক সদস্য। ছত্তীসগঢ়ের বালোডাবাজার-ভাতাপাড়া জেলায় বুধবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটে। পুলিশ অভিযুক্ত সুরেশ মিরিকে গ্রেপ্তার করছে। খবর আনন্দবাজার।

সারগাঁও পুলিশের এএসআই পরেশরাম জাগাত সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানান, জিজ্ঞাসাবাদে স্ত্রীকে খুন করার কথা স্বীকার করছেন মিরি। অভিযুক্ত সেনা সদস্য জানিয়েছেন, তার স্ত্রী লক্ষ্মীর সঙ্গে একটি ছেলের বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক ছিল। বিষয়টি নিয়ে তাদের মধ্যে অশান্তি লেগেই থাকত। বুধবার সন্ধ্যায় অশান্তি চরম আকার নেয়। তারপর লক্ষ্মী বাথরুমে গেলে তার উপর চড়াও হন মিরি। ব্যাপক মারধর করেন। এতে জ্ঞান হারান ২৭ বছরের লক্ষ্মী।

পুলিশ জানিয়েছে, বুধবার প্রথমে মিরি তার শ্বশুর বাড়িতে জানান লক্ষ্মী গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। কিছুক্ষণের মধ্যেই আবার জানান, লক্ষ্মী আর নেই। সে মারা গেছে। তার এ কথায় লক্ষ্মীর পরিবারের সন্দেহ হয়। তারাই পুলিশকে খবর দেন।

তার প্রেক্ষিতেই বৃহস্পতিবার সকালে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে নিজের দোষ স্বীকার করেন মিরি। ৩৩ বছরের এই যুবকের সঙ্গে লক্ষ্মীর বিয়ে হয় বছর ছয়েক আগে। তাদের দুই সন্তানও রয়েছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here