জাপানে গত দুই সপ্তাহ ধরে তীব্র গরমে অন্তত ৩০ জন মারা গেছেন। অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সহস্রাধিক মানুষ। এরমধ্যে শুধু শনিবারই মারা গেছেন ১১ জন। তাদের মধ্যে ১১ বছরের শিশু থেকে শুরু করে ৭০ বছরের বৃদ্ধও রয়েছেন।

দেশটির গণমাধ্যমগুলো জানায়, প্রচণ্ড গরমে রাজধানীর টোকিওতেই মারা গেছেন ১৪ জন। অসুস্থাবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি আছে অসংখ্য মানুষ। যার মধ্যে শিশুর সংখ্যার বেশি।

জাপনের আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, এ সপ্তাহে দেশটির মধ্যাঞ্চলে তাপমাত্রা ৪০.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠেছে। যা গত পাঁচ বছরে দেশটিতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

কিয়োটো শহরে গত সাত দিনে টানা তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। একনাগারে এমন তীব্র তাপমাত্রা এর আগে ১৯ শতকের শুরুর দিকে দেখা গিয়েছিল। জাপানের রাজধানী টোকিওর হাসপাতালগুলোতে গত বুধবার রেবর্ডসংখ্যক তিন হাজার জরুরি কল আসে। হাসপাতলের বেশিরভাগ রোগীই গরমে অসুস্থ হয়ে ভর্তি হয়েছেন।

গত ৯ জুলাই থেকে জাপানজুড়ে বয়ে যাচ্ছে তীব্র দাবদাহ। বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই এখন চলছে তাবদাহ। শীতপ্রধান দেশ কানাডায়ও তীব্র গরমে মারা গেছেন শতাধিক মানুষ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here