চলতি ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে প্রাপ্তি বলতে শুধু দু’দিন আগে প্রস্তুতি ম্যাচে জয়টিই। এছাড়া গত টেস্ট সিরিজে সাকিব-তামিমরা যেভাবে ক্যারেবীয়দের কাছে পর্যদস্থ হয়েছে তাতে সমর্থকদের মনেরাজ্যের হতাশা ভর করতেই পারে। তবে আজ থেকে গায়নায় শুরু হচ্ছে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। আর ক্রিকেটের এই ফরমেটটিতেই যেহেতু টাইগাররা একটু হলেও ধরাবাহিক তাই তারা ঘুরে দাঁড়াবে বলে আশা করছে দেশবাসী।

গায়ানায় বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় মাঠে নামবে দুই দল। ইতিমধ্যেই ওয়ানডে সিরিজ শুরুর আগে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচটা বাংলাদেশ শিবিরে হাসি ফুটিয়েছে। প্রস্তুতি ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভাইস চ্যান্সেলর একাদশকে ৪ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে ক্যারেবীয় দলটির একাদশে ক্রিস গেইল, আন্দ্রে রাসেল ও রোভম্যান পাওয়েল ছাড়া চেনাজানা ছিল না কেউই। তারপরও জয়ের স্বাদ ভুলতে বসা বাংলাদেশের জন্য সেই জয়টাই বা কম কি!

জুনে দেরাদুনে অনুষ্ঠিত আফগানিস্তান সিরিজ থেকেই পথহারা পথিক বাংলাদেশ। আফগানদের বিপক্ষে ৩-০ তে হোয়াইটওয়াশ হওয়া। ঠিক সেই বাংলাদেশটাই দেখা মিলল ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে। ক্যারিবিয় পেস সামলাতে টালমাটাল ছিল বাংলাদেশের ব্যাটিং। দুই টেস্টেই চরম ব্যাটিং ব্যর্থতায় হার মানতে হয় বাংলাদেশকে। বিদেশের মাটিতেও দুর্দান্ত বল করেও তাই পরাজিত দলে থেকে যান মেহেদী হাসান মিরাজ, সাকিব আল হাসানরা।

টি-টুয়েন্টি ও টেস্টর পর চক্রের শেষ উপাদান ওয়ানডে। টাইগারদের প্রিয় ফরম্যাট বলে যেখানে আশা কিছুটা। তাছাড়া এখানে ফিরছেন প্রেরণাদায়ী অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। তার নেতৃত্বে অন্তত ঘুড়ে দাঁড়াবে বাংলাদেশ, এমনটাই চাওয়া সবার। গায়ানার মাঠটিও প্রেরণার হতে পারে বাংলাদেশ দলের জন্য। ২০০৭ সালে এ মাঠেই দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here