মুসলমানদের বড় ধর্মীয় উৎসবের মধ্যে একটি হলো পবিত্র ঈদুল আযহা। এ উপলক্ষে রাজধানীতে কুরবানির পশুর হাট দুইশ করার পাশাপাশি নির্দিষ্ট স্থানে কুরবানির স্পট নির্ধারণ না করার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামালীগ।

রবিবার (২২ জুলাই) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামালীগ সহ-সমমাননা ১৩টি সংগঠনের আয়োজনে এক মানববন্ধন থেকে এ দাবি জানানো হয়।

বক্তরা বলেন, ‘বর্জ্য ব্যবস্থাপনার অজুহাতে প্রতিবছর স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের কুরবানিবিরোধী চক্রান্তকারীদের নির্দেশে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনসহ সারাদেশে সব সিটি কর্পোরেশন পবিত্র কুরবানির উপর হস্তক্ষেপ করে আসছে। পশু জবাইয়ের স্থান নির্দিষ্ট করার অবাস্তব ও অগ্রহণযোগ্য নির্দেশনা জারি করে আসছে। যা দেশের মুসলমানের ধর্মীয় স্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপের শামিল।’

কোরবানির পশুর হাট কমানোর ষড়যন্ত্র বন্ধের দা‌বি জা‌নি‌য়ে বক্তারা বলেন, ‘দুই কোটি জনসংখ্যার ঢাকা মেগাসিটিতে যেখানে কোরবানির পশুর হাট বাড়ানোর কথা; সেখানে কুরবানি বিরোধীদের ষড়যন্ত্রে কমানো হয়েছে তিনটি পশুর হাট। গতবার এ সংখ্যা ছিল ২৩টি এবার হয়েছে ২০টি। পরিসংখ্যান অনুযায়ী ঢাকায় ৩০ লাখ কোরবানি হয়ে থাকে। সে অনুযায়ী মাত্র ২০টি পশুর হাট থেকে ১ লাখ ৫০ হাজার লোককে কোরবানির পশু সংগ্রহ করতে হবে যা অবাস্তব ,অযৌক্তিক এবং অন্যায় সিদ্ধান্ত।’

তারা বলেন, ‘ঢাকাসহ সারাদেশে রাস্তাঘাটে পূজামণ্ডপ হতে পারে। রাস্তা বন্ধ করে রথযাত্রা হওয়ার পরও যদি যানজটে জনদুর্ভোগ না হয়। সেখানে মুসলমানদের ওয়াজিব কুরবানি করতে যানজটসহ বিভিন্ন অজুহাতে প্রতিটি এলাকায় পশুর হাট বরাদ্দ না করা এবং হাট কমানো কোরবানি বিরুদ্ধে কঠোর সম্প্রদায়িক সিদ্ধান্ত।’

নেদারল্যান্ডের এমপি গিয়ার্ট উইল্ডার্স এর ফাঁসির দাবি জানিয়ে বক্তারা বলেন, ‘নেদারল্যান্ডের এমপি গিয়ার্ট উইল্ডার্স হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রতিযোগিতা আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি নেদারল্যান্ড। পশ্চিমা রাষ্ট্রগুলো বাকস্বাধীনতার নামে দ্বীন ইসলাম ও মুসলমানদের ওপর পরিকল্পিত আক্রমণের সুযোগ করে দিচ্ছে। তাই ঢাকাস্থ নেদারল্যান্ড রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে এরকম ন্যাক্কারজনক ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানাতে হবে এবং তাকে ফাঁসি দিতে হবে।

এ সময় মদের উপর ট্যাক্স কমানোর দাবিকারী মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ কে মন্ত্রিসভা থেকে বহিষ্কারের দাবি জানান তারা।

বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামালীগের সভাপতি আলহাজ্ব মাওলানা মো. আখতার হোসেন বুখারীর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব কাজী মাওলানা মো. আবুল হাসান শেখ শরীয়তপুরী, সম্মিলিত ইসলামী গবেষণা পরিষদের সভাপতি আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা মো. আব্দুস সাত্তার প্রমুখ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here