ধর্মভীরু ভারতকে বলা হয় ধর্মগুরুদের দেশ। এই সুযোগে সেখানে একের পর অনেকটা সাম্রাজ্য বিস্তার করেছেন অসংখ্য ভণ্ড ধর্মগুরু। রাম রহিম সিং, দাতি মহারাজ, শঙ্কর তিওয়ারি ওরফে বাবা পরমানন্দ, আশারাম বাপুরা তার প্রমাণ। ইতিমধ্যেই ধর্ষণসহ নানা অভিযোগে এসব তথাকথিত ধর্মগুরুদের অনেকেই এখন জেলের ঘানি টানছেন। এবার তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন হরিয়ানার আরেক স্বঘোষিত বাবা তান্ত্রিক অমরপুরি।

অমরপুরির বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে শতাধিক নারী ধর্ষণের। ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের ফতেহাবাদ জেলার তোহানার আশ্রম থেকে গত শুক্রবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ধর্ষণের শিকার এক নারীর এক আত্মীয়ের অভিযোগের পর পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করে। নির্যাতনের শিকার ওই নারী পুলিশের হাতে ধর্ষণের পাঁচটি ভিডিও ফুটেজ তুলেও দিয়েছেন।

৬০ বছরের এই বাবার আশ্রমের নাম বালকনাথ মন্দির। তিনি এখানে বিল্লু বাবা নামেও পরিচিত।

কথিত তান্ত্রিক অমরপুরি

ফতেহাবাদ জেলার ডেপুটি পুলিশ সুপার যোগিন্দ শর্মা বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ বাবা অমরপুরিকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারের সময় আশ্রম থেকে বিভিন্ন ধরনের আপত্তিকর জিনিস জব্দ করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, এই স্বঘোষিত বাবার বিরুদ্ধে ১২০ জন নারীকে ধর্ষণের অভিযোগের প্রমাণ মিলেছে। বাবার ডেরা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ১২০ জন নারীকে ধর্ষণ করার ভিডিও ফুটেজ। অভিযোগ রয়েছে, বাবা নিজেই ধর্ষণের ছবি তুলে রাখতেন।

গত শুক্রবার অমরপুরিকে গ্রেপ্তারের পর তোলা হয় তোহানা আদালতে। বিচারক তাঁকে পাঁচ দিন পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। পুলিশ ইতিমধ্যে সিল করেছে অমরপুরির ব্যবহৃত ঘর। এদিকে এই ঘটনা ছড়িয়ে পড়ার পর ধর্ষণের শিকার আরও দুই নারী পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করতে চেয়েছেন।

যদিও অমরপুরির দাবি, তিনি পুলিশকে ‘প্রোটেকশন মানি’ দিতে সম্মত না হওয়ায় পুলিশ তাকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এসব ঘটনায় জড়াচ্ছে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here