গ্রিসের এথেন্স শহর থেকে ৪০ কিলোমিটার উত্তরে মাটি এলাকায় ভয়বাহ দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে। এতে অন্তত ২৪ জন নিহত হয়েছে। যাদের মধ্যে ১৬ জনই শিশু।

এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো শতাধিক। গুরুতর আহত ২৫ জনকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। তাদের মধ্যে ১১ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এ ঘটনায় নিখোঁজ বহু পর্যটক৷ আতঙ্কে বাড়ি ছেড়ে পালাতে শুরু করেছেন বাসিন্দারা৷

মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) দেশটির সরকারি মুখপাত্র দিমিত্রিৎস তজাকোপোলোস গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। একই সঙ্গে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে দেশটির পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর কাছে সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।

সোমবার সকালে এথেন্সের কাছে একটি জঙ্গলে আগুন লাগে৷ ওই আগুনে প্রথমে মারা যায় সাতজন৷ এরপর দাবালনের মতো ছড়িয়ে পড়তে থাকে আগুন৷ হু হু করে বাড়তে শুরু করে মৃতের সংখ্যা৷ সরকারি হিসেবে মৃতের সংখ্যা ২০৷ তবে বেসরকারি মতে এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানা গিয়েছে৷

এছাড়া বেশ কিছু পর্যটকের নিখোঁজ হয়ে পড়ার খবর মিলেছে৷ নিখোঁজদের মধ্যে রয়েছে ডেনমার্কের চার নাগরিক ৷

এখনও সেখানে দাউদাউ করে জ্বলছে আগুন৷ কালো ধোঁয়ায় ঢেকে গিয়েছে আকাশ৷ ধোঁয়ায় শ্বাস নেওয়া দায় হয়ে পড়েছে৷ অনেকে এই কারণে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন৷ বিপুল ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে৷

গ্রিক প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সি সিপ্রাস জানিয়েছে, একটা সামঞ্জস্যহীন ঘটনার সঙ্গে লড়াই করে চলেছি৷ তাকে দৃশ্যতই থমথমে দেখাচ্ছিল

দাবালনের ঘটনা নতুন নয় গ্রিসে৷ কিন্তু এমন ভয়াবহ দাবালন গত এক দশকে দেখেনি গ্রিকবাসী৷ তবে কী থেকে এই আগুন ছড়িয়েছে তা পরিস্কার নয়৷ ইতিমধ্যে এথেন্সের প্রশাসন বাসিন্দাদের বাড়ি ঘর ছেড়ে নিরাপদ জায়গায় যাওয়ার আবেদন জানিয়েছেন৷ এথেন্সে বন্ধ রয়েছে সড়ক ও ট্রেন সেবা৷

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here