নারায়ণগঞ্জের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতা শামীম ওসমান বলেছেন, সামনে কঠিন খেলা হবে। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর খেলা শুরু হবে। অক্টোবর মাস থেকে খেলা হবে। অক্টোবরে যেদিন ক্ষমতা ছেড়ে দেবো তখন হয়ে যাব বিরোধী দল। তখন অন্য দলের মতো আমরা হয়ে যাবো সমান সমান। তখন কেউ বলতে পারবে না।

সোমবার বিকেলে ফতুল্লার কাশিপুর উত্তর নরসিংপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে কাশিপুর ইউনিয়ন ১, ২, ৩ নং ওয়ার্ডে নির্বাচনী পরিচালনা কেন্দ্র কমিটির উদ্যোগে মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

বিশেষ শ্রেণি ও একটি জাতীয় দৈনিকের প্রতি শামীম ওসমান বলেন, তারা খেলবে একটি পক্ষের খেলা। আমরা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি হয়ে সাধারণ মানুষকে নিয়ে খেলবো আরেক খেলা। ইনশাআল্লাহ আমরা জয়ী হবো। আমরা এই খেলায় জিততে চাই।

এ সময় শামীম ওসমান নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, আমি তৃণমূলের ওপর আস্থা রেখে রাজনীতি করতে চাই। কোনো নেতার ওপর নয়। তৃণমূল হচ্ছে দলের চালিকা শক্তি। বড় বড় নেতারা সুবিধা পেয়ে অন্য দিকে চলে যাবে। কিন্তু তৃণমূলের নেতাকর্মীরা দল ছেড়ে কখনো অন্য জায়গায় যাবে না। তৃণমূলের নেতাকর্মীরা বঙ্গবন্ধু ও আওয়ামী লীগ ভালবাসে।

তিনি বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুকে ভালোবসে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করে তাদের প্রতি সুদৃষ্টি রয়েছে শেখ হাসিনার। তিনি আরও বলেন, বিএনপির অনেক ভোট আছে আমি অস্বীকার করবো না। বিএনপিকে নিয়ে অনেকে খেলা খেলতে চাইছে। সেই খেলায় খালেদা জিয়া নায়িকা হবে না। খেলার নায়ক হবে অন্য লোক।

আওয়ামী লীগের এই নেতা আরো বলেন, সামনে একটি নির্বাচন হবে। নির্বাচনে খেলা হবে স্বাধীনতার পক্ষ ও বিপক্ষের। নারায়ণগঞ্জের অবস্থা তো আরো করুণ। রাস্তায় দাঁড়িয়ে মনোনয়ন দিয়ে দেওয়া হচ্ছে। যারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে যেতে পারে না তারাই রাস্তায় দাঁড়িয়ে মনোনয়ন দেয়। আমি স্পষ্টভাবে বলতে চাই, মনোনয়ন দেওয়ার মালিক শেখ হাসিনা। তিনিই ভাল জানেন কাকে কোথায় মনোনয়ন দিবেন।

মতবিনিময় সভায় কাশিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মোহাম্মদ বাদল, মহানগর আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি ও ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি বাবু চন্দন শীল, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফউল্লাহ বাদল, সাধারণ সম্পাদক শওকত আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মো: জুয়েল হোসেন, জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন, জেলা যুবলীগ নেতা মাইনুল হোসেন মানু, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুর রহমান হাবিব, কাশিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আইয়ুব আলী, সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) এমএ সাত্তার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এহসানুল হক নিপু, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাফায়েত আলম সানী, ফতুল্লা থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ মান্নান, কাশিপর ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান শামীম আহম্মেদ, কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম আহম্মেদ, কাশিপুর ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি আবুল কালাম সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here