এক সপ্তাহ ধরে কোমরে অসহ্য ব্যথা আর জ্বরে ভুগছিলেন ঝ্যাং। অবশেষে চিকিৎসকের দ্বারস্থ হন তিনি। পরীক্ষার পর চিকিৎসকরা অবাক হয়ে দেখেন যে, ঝ্যাং’র ডানদিকের কিডনি বোঝাই হয়ে আছে পাথরে। ঘটনাটি ঘটেছে চীনের জিয়াংশু প্রদেশের চ্যাংঝৌ এলাকার একটি হাসপাতালে।

হাসপাতালের ইউরোলজি বিভাগের ডিরেক্টর মো নাইশিন সাংবাদিকদের বলেন, তারা প্রথমে যেমন অবাক হয়ে গিয়েছিলেন, তেমনই তাদের আশঙ্কা ছিল অস্ত্রোপচারের উল্টো ফল হওয়ার আশঙ্কায়। সবকয়টি পাথর বের করতে এবং রোগীকে সুস্থ রাখতে তাদের ঝ্যাং’র ডান কিডনিটি কেটে বাদ দিতে হয়। ঝ্যাং’র ডায়াবিটিস আছে। সেজন্যই এই অবস্থা হয়েছে বলে জানান নাইশিন।

সফল অস্ত্রোপচারের পর ৫৬ বছরের সেই বৃদ্ধার কিডনি থেকে ২৯৮০টি পাথর বেরিয়েছে। যা গুনতে এক শিক্ষানবীশ চিকিৎসকের পুরো এক ঘণ্টা লেগেছে। অস্ত্রোপচারের পর এখন সুস্থ আছেন ঝ্যাং।

শারীরিক পরীক্ষার সময় তিনি চিকিৎসকদের বলেছিলেন, তিনি দীর্ঘদিন ধরেই কিডনিতে পাথরের সমস্যায় ভুগছেন। কিন্তু তার কিডনি থেকে প্রায় ৩০০০ পাথর বেরিয়েছে শুনে অবশ্য প্রথমে সেকথা বিশ্বাস করতে চাননি ঝ্যাং।

তবে ঝ্যাং গিনেস রেকর্ডে কিডনিতে পাথরের ব্যাপারে আপাতত দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন। প্রথম স্থানে এখনও আছেন ভারতের মুম্বাইয়ের মহারাষ্ট্রের ধনরাজ ওয়াডিলে। যাঁর কিডনি থেকে ১,৭২,১৫৫টি পাথর অস্ত্রোপচার করে বের করেছিলেন চিকিৎসকরা ২০০৯ সালে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here