কর্মক্ষেত্রে যৌন হয়রানি ঠেকাতে গত বছর হলিউড তারকারা শুরু করেন ‘মিটু’ ও ‘টাইমস আপ’ কর্মসূচি। তবে সেগুলো সীমাবদ্ধ ছিল কেবলই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কিংবা বিভিন্ন উৎসবে। বাংলাদেশে ‘আই স্ট্যান্ড ফর ওম্যান’ তেমনই একটি কার্যক্রম। তবে তার অংশ হিসেবে নির্মিত হলো ৮টি ছোট দৈর্ঘ্যের ছবি। সব ছবিতেই উঠে এসেছে নারীর সঙ্গে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ধরনের যৌন নিপীড়ন ও হয়রানির ঘটনা। এছাড়া আছে একটি পিএসএ।

এই উদ্যোগের ছবিগুলো হলো আফজাল হোসেন মুন্নার ‘দ্য ওল্ডম্যান অ্যান্ড দ্য গার্ল’ (নুসরাত ইমরোজ তিশা), জসীম আহমেদের ‘চকোলেট’ (গোলাম ফরিদা ছন্দা, শতাব্দী ওয়াদুদ, আজিজুল হাকিম), সাকি ফারজানার ‘দ্য পার্ক, দ্য বেঞ্চ অ্যান্ড দ্য গার্ল’, প্রতীক সরকারের ‘মুখোশ’ (ইন্তেখাব দিনার), আশিকুর রহমানের ‘অসম্ভাবিত’ (মৌসুমী হামিদ, শতাব্দী ওয়াদুদ), রাজু আহসানের ‘লিপস্টিক’ (জয়রাজ, তারিন রহমান) এবং আসিফ খানের ‘দ্য মাদার’। আর খিজির হায়াত খানের পিএসএ’র নাম ‘সে নো টু রেপ’।

এ সম্পর্কে নির্মাতা মুন্না বলেছেন, ‘আমাদের বিশ্বাস, এই সিনেমাগুলো দেখার পর যে কেউ মেয়েদের সঙ্গে বাজে আচরণ করতে ভয় পাবে। একইসঙ্গে মেয়েদের মধ্যেও সচেতনতা বৃদ্ধি পেলে আমরা সার্থক হবো।’

মুন্না আরো জানান, শিগগিরই সবাইকে ডেকে বড় একটি আয়োজনের মাধ্যমে ছবিগুলো আমরা সবার জন্য উন্মুক্ত করবো। এখন সেই প্রক্রিয়াই চলছে।

উদ্যোগটির সঙ্গে যুক্ত আরেক নির্মাতা জসিম আহমেদ বলেছেন, ‘এ উদ্যোগের ছবিগুলোর উদ্বোধনী প্রদর্শনীর পর আমরা বিভিন্ন জেলায় ঘুরে ঘুরে দেখাবো। আমি বিশ্বাস করি, ধীরে ধীরে একটা সময়ে সহিংসতা বন্ধ হবে।’

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here