সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) বাইরের ফুটপাতে বৃষ্টিস্নাত প্রেমিক-প্রেমিকার চুম্বনের ছবি তোলা চিত্রসাংবাদিক জীবন আহমেদ চাকরি হারিয়েছেন। একইসঙ্গে পরিকল্পিতভাবে ওই ছবি তুলেছিলেন বলেও জানান তিনি। সেই সঙ্গে এ ছবি তোলার পর তাকে মারধরের ঘটনাও ব্যক্তিগত কারণে ঘটেছিল বলে দাবি করেছেন তিনি।

পূর্বপশ্চিম অনলাইন পোর্টালে কন্ট্রিবিউটিং ফটোগ্রাফার হিসেবে কাজ করা জীবন আহমেদ নিজেই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, যারা আমাকে পিটিয়েছিল, তারাও চিত্রসাংবাদিক। তাদের বিরুদ্ধে মামলা না করায় আমার অফিস বিরক্ত হয়েছে। এরপর আমার পরিচয়পত্র এবং ল্যাপটপ ফেরত চাওয়া হয়েছে অফিসের পক্ষ থেকে।

জীবন বলেন, অফিসের অ্যাডমিন অফিসার আমার আইডি কার্ডটি জমা দিতে বলেছে। আমি বলেছি যে আমার কাছে অফিসের ল্যাপটপও আছে। ল্যাপটপে আমার কিছু ব্যক্তিগত ফাইল আছে। এগুলো নিজের সংগ্রহে নিয়ে আমি সবই জমা দিয়ে আসবো।

তিনি আরও বলেন, অ্যাডমিন থেকে যেহেতু আইডি কার্ড চেয়েছে, তাই আমি স্বাভাবিকভাবেই ধরে নিয়েছি যে আমার চাকরি নেই। চাকরি থেকে অব্যাহতি দিতেই হয়তো আইডি কার্ড চাওয়া হয়েছে। অন্য কোনও কারণে কর্মীদের আইডি কার্ড নেয় না অফিস।

উল্লেখ্য, জীবন আহমেদ হামলার শিকার হওয়ার পর গত ২৪ জুলাই পূর্বপশ্চিম ‘নির্মল প্রেমের চুমুর ছবি তোলায় পূর্বপশ্চিমের ফটোগ্রাফার জীবনের ওপর হামলা’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। কিন্তু ২৮ জুলাই নিউজপোর্টালটি ‘বৃষ্টিতে টিএসসির চুমুর ছবি তোলা জীবনের ভূমিকাই রহস্যময়’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

**রাজনৈতিক, ধর্মবিদ্বেষী ও খারাপ কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন।**

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here